নতুন ভোর মাকসুদা দোলন

0
265
আঁধারে ঢেকে আছে সময়ের এক বিশাল সাগর,
গুনছি উৎকণ্ঠার প্রহর, দেখছি সারিসারি লাশের বহর।
শুনছি শুধু ভবিষ্যতে ধেয়ে আসছে মৃত্যুর করাল গ্রাসের খবর;
অস্থির সময়ে ভয়ে বিশ্ব নতজানু, চোখেমুখে হতাশা বাঁচার যুদ্ধে যন্ত্রণায় কাতর।
কখনও শুনিনি চলমান কম্পিত সময়ের ক্রান্তিকালের অবসান আসবে আলোর দিশা,
খুঁজে পাবে মানব সভ্যতা মুক্তির পথ, নতুন ভোরের আলোয় কেটে যাবে বন্দিদশা।
 
আমি খুব করে চাই,চোখ দুটো মেলে যেদিকে তাকাই
নির্মল বাতাস,কর্মচঞ্চল পরিবেশ সবকিছু যেন ফিরে পাই।
আমি শান্তির বিশ্ব দেখতে চাই,স্বস্তির নিংশ্বাস ফেলতে চাই।
দেহটা খুব ক্লান্ত, মনটা অশান্ত
হয়না স্হির, হৃদয়টা শোকে ভারাক্রান্ত ।
চাইনা বিভীষিকাময় দিনের অস্তগমন,বাতাসে ভেসে আসে মৃত্যুর গন্ধ;
আপন জনের নির্মম একাকিত্বের চিরগমন, বেঁচে থাকার লড়াইয়ে অস্ত্রবিহীন কঠিন এক যুদ্ধ ।
চাই ঘাতক পয়োজনের বিরুদ্ধে গৃহবন্দি মানবতার যুদ্ধের অবসান;
চাই মানব সভ্যতার সুস্থ,সুন্দর স্বাভাবিক জীবন ।
বিভাজন করতে চাই না হিন্দু,বৌদ্ধ, খ্রিস্টান আর মুসলমান;
রক্তে মাংসে এক মানুষ সবার উপরে স্হান, মানবতার সেবায় নিবেদিত চাই সবার অবদান ।
 
শুনতে চাইনা সম্বলহীন অসহায় গরীবের ক্ষুধার আর্তনাদ ;
দেখতে চাই না অন্তকঙ্কাল শূন্যদেহ, দারিদ্র্যতার পেষনে জর্জরিত চোখে জলপ্রপাত।
জঠরের জ্বালায় দুমুঠো খাবারের আশায় পথের অলিগলিতে অপেক্ষার দিনগোনা;
অনিশ্চয়তা জীবনের আয়ুস্কাল ফুরিয়ে তিলেতিলে পাক মরণ যন্ত্রণা ।
চাই কর্মহীনদের কর্মজীবনে আসুক চঞ্চলতা,কেটে যাক সকল স্হবিরতা;
দুর্ভিক্ষের কবল থেকে মুক্তি পেয়ে আসবে আর্থিক স্বচ্ছলতা ।
 
আসবে নতুন ভোরের আলো, দেখবো সম্ভাবনাময় পৃথিবীর রূপ;
হাসবে প্রকৃতির শ্রেষ্ঠ জীব, ঘরে ঘরে জ্বলবে মানব মুক্তির প্রদীপ ।
আপনার মতামত লিখুন :