বিশ্ব শান্তি সূচকে ভারত-পাকিস্তানের চেয়ে এগিয়ে বাংলাদেশ

0
160

গত বছরের তুলনায় চলতি ব‌‌ছরে বৈশ্বিক শান্তি সূচকে ‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌(জিপিআই) বাং‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌লাদেশে‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌র‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌ ‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌ক‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‍‍‍‍‍‍‍‍‍‍‍‍‍‍‍‍‍‍‍‍‍‍‍‍‍‍‍‍‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‍‍‍‍‍‍‍‍‍‍‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌য়েক ধাপ উন্নতি হ‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌য়েছে। গত বছর বিশ্ব শান্তির এ সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান ১০১তম থাকলেও এবার তা ৯৭তম। গত বছরের মতো এবারও বৈশ্বিক এ সূচকে ভারত (১৩৯তম), পাকিস্তানের (১৫২তম) চেয়ে এগিয়ে রয়েছে বাংলাদেশ।

অস্ট্রেলিয়ার সিডনিভিত্তিক আন্তর্জাতিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান ইনস্টিটিউট ফর ইকোনমিকস অ্যান্ড পিস (আইইপি) বিশ্ব শান্তি সূচক-২০২০ তৈরি করেছে। সূচকে বিশ্বের স্বাধীন ১৬৩টি দেশের নাগরিকদের শান্তিপূর্ণ জীবন-যাপনের নিরাপত্তা ও সুরক্ষা, অর্থনৈতিক মূল্য, ট্রেন্ড এবং শান্তিপূর্ণ সমাজ গঠনে দেশগুলোর নেয়া পদক্ষেপের তথ্যের ওপর ভিত্তি করে এই সূচক তৈরি করা হয়।

এবার বিশ্ব শান্তি সূচকে দক্ষিণ এশিয়ায় সবচেয়ে বেশি উন্নতি ঘটেছে বাংলাদেশের। সামগ্রিকভাবে ২ দশমিক ৩ শতাংশ অগ্রগতি নিয়ে বাংলাদেশের স্কোর এ বছর ২ দশমিক ১২১। তিনটি মাপকাঠির সব কয়েকটিতেই বাংলাদেশের অগ্রগতি হয়েছে জানিয়ে জিপিআই বলছে, সবচেয়ে বড় উন্নতি ঘটেছে সামাজিক সুরক্ষা এবং নিরাপত্তায়। বিরোধী দল বিএনপির প্রতিবাদ-বিক্ষোভের সংখ্যা কমে আসায় নিরাপত্তা ও সুরক্ষায় উন্নতি দেখেছে বাংলাদেশ।

তবে উন্নত কর্ম পরিবেশের দাবিতে তৈরি পোশাক শিল্প খাতে বিক্ষোভ-প্রতিবাদ অব্যাহত থাকলেও তা এখন পর্যন্ত শান্তিপূর্ণ রয়েছে। এছাড়া অভ্যন্তরীণ সংঘাত, খুন ও সন্ত্রাসবাদের প্রভাব কমায় সেসব বাংলাদেশের সামগ্রিক অগ্রগতিতে অবদান রেখেছে।

২০০৮ সাল থেকে শান্তিপূর্ণ দেশের শীর্ষে থাকা আইসল্যান্ড এবারও প্রথম স্থান ধরে রেখেছে। এরপরই রয়েছে, নিউজিল্যান্ড (দ্বিতীয়), পর্তুগাল (তৃতীয়), অস্ট্রিয়া (চতুর্থ) ও ডেনমার্ক (পঞ্চম)। বৈশ্বিক শান্তি সূচকের ১৪তম এ সংস্করণে বাংলাদেশের প্রতিবেশী ভারত রয়েছে ১৩৯তম অবস্থানে, পাকিস্তান ১৫২তম এবং গত বছরের ন্যায় এবারও একেবারে তলানিতে আফগানিস্তান (১৬৩তম)।

এ বছরের শান্তি সূচকে বিশ্বজুড়ে শান্তির অবনতি ঘটেছে ০ দশমিক ৩৪ শতাংশ। ১৬৩টি দেশের মধ্যে ৮১ দেশে শান্তি বাড়লেও কমেছে বাকিগুলোতে। তবে শীর্ষ ২০-এ ঢুকে পড়া দেশগুলোর মধ্যে গত ১২ বছরে ৪৩ ধাপ অগ্রগতি নিয়ে গত বছর এ তালিকায় ১৫তম অবস্থানে থাকলেও এবার দেশটির অবনতি ঘটেছে। গত বছরের ১৫তম স্থান থেকে এবার দেশটির অবস্থান ১৯তম।

গত বছরের মতো এবারও যুদ্ধবিধ্বস্ত আফগানিস্তান রয়েছে তলানিতে। আফগানিস্তান ১৬৩তম, সিরিয়া ১৬২তম, ইরাক ১৬১তম, দক্ষিণ সুদান ১৬০তম এবং ইয়েমেন ১৫৯তম অবস্থানে রয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :