আপনার ফোনের ক্যাশে ক্লিয়ার করবেন?

0
161

আপনার অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনের স্টোরেজের জায়গা দখল করে রাখে ক্যাশে ফাইলস। আপনি যত বেশি অ্যাপ ব্যবহার করেন, তত বেশি স্টোর হতে থাকে তার তথ্য। টেমপোরারি ফাইলসের মাধ্যমে এই তথ্য স্টোর করে অ্যাপগুলো।

অ্যান্ড্রয়েড ফোনের এই টেমপোরারি ফাইলসকে বলা হয় ক্যাশে। আপনি যখন কোন অ্যাপ দ্বিতীয়বার ব্যবহার করেন তখন আপনার আগের অভিজ্ঞতার ভিত্তিতে ইউজার তথ্য সংগ্রহ করে অ্যাপটি। সেই তথ্য মেলে ক্যাশে ফাইলস থেকেই।

ক্যাশে ক্লিয়ার করবেন কেন?
ক্যাশে ফাইলসের বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে। তাই সব সময় ক্যাশে ক্লিয়ার করার প্রয়োজন নেই। তবে মাঝেমধ্যে তা করা উচিত।

– ক্যাশে ক্লিয়ার করলে ফোনের স্পেস সাময়িক সময়ের জন্য বাড়ে।
– পুরোনো ক্যাশে ফাইল খারাপ হয়ে থাকতে পারে। এর কারণে অ্যাপে সমস্যা দেখা দিতে পারে।
– কোন অ্যাপ যদি আপডেটে সমস্যা দেখা দেয়। তবে ক্যাশে ক্লিয়ার করলে তা আপডেট নিতে বাধ্য।

নিয়মিত ক্যাশে ক্লিয়ার করা উচিত?
ক্যাশে ক্লিয়ারের নিয়ম জানা থাকলে নিয়ম করে তা পরিষ্কারের কথা মনে হতেই পারে। তবে নিয়মিত ক্যাশে ক্লিয়ার মোটেই উচিত নয়। জেনে নিন কখন ক্যাশে ক্লিয়ার করবেন-

– যখন অ্যাপের ক্যাশে ফাইল করাপ্ট হয়েছে, যার ফলে অ্যাপে অবাঞ্চিত পরিবর্তন লক্ষ্য করা যায়।
– ব্যক্তিগত তথ্য রয়েছে, এমন অ্যাপের ক্যাশে ডিলিট করা উচিত।
– স্টোরেজ সমস্যা থাকলে, অবশ্যই ডিলিট করুন।

কীভাবে ক্যাশে ডিলিট করবেন?
অ্যান্ড্রয়েডের নতুন ভার্সন অনুযায়ী, প্রতিটি অ্যাপের ক্ষেত্রে আলাদা ভাবে ক্যাশে ডিলিট করতে হয়।

– স্মার্টফোনের সেটিংসে যান।
– সেখান থেকে অ্যাপ সেটিংসে যান।
– এমন অ্যাপ বেছে নিন, যার ক্যাশে ফাইলের সাইজ বেশি।
– অ্যাপের ইনফো পেজে গিয়ে ক্লিয়ার ক্যাশে’তে ক্লিক করুন।

ক্যাশে ক্লিয়ার হওয়ার পর কী হয়?
আপনার অ্যাপ থেকে ক্যাশে ক্লিয়ার করার পর অ্যাপের পারফরম্যান্স আগের তুলনায় ভালো হবে। তবে সময়ের সঙ্গে সঙ্গে আবারো ক্যাশে ফিরে আসবে। মনে রাখবেন, ক্যাশে ক্লিয়ার করলে আপনাকে দ্বিতীয়বার অ্যাপে লগ ইন করতে হবে না বা অ্যাপে আপনি কতটা এগিয়েছেন, বা ব্যবহার করেছেন তা প্রভাবিত হবে না।

আপনার মতামত লিখুন :