বরাদ্দে দুর্নীতির অভিযোগে রূপগঞ্জের পিআইও মনিরুল হককে স্ট্যান্ড রিলিজ

0
121

প্রকল্প উন্নয়ন কাজের বরাদ্দে দুর্নীতির অভিযোগে রূপগঞ্জ উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) মনিরুল হককে স্ট্যান্ড রিলিজ করা হয়েছে। তাকে অপসারণের দাবিতে উপজেলা পরিষদের সামনে বৃহস্পতিবার মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেছে স্থানীয়রা। ইউএনও মমতাজ বেগম জানান, অভিযুক্ত কর্মকর্তাকে ত্রাণ ও দুর্যোগ মন্ত্রণালয়ে বদলি করা হয়েছে।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফেরদৌসী আলম নীলা, উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শীলা রানী পাল, উপজেলা যুব মহিলা লীগের সভাপতি ফেরদৌসী আক্তার, সাধারণ সম্পাদক সেলিনা আক্তার রিতা, ইউপি সদস্য বজলুর রহমান, উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ ফরিদ ভুইয়া মাসুম, মুড়াপাড়া কলেজের ভিপি সাইফুল ইসলাম তুহিন, জিএস সাদিকুল ইসলাম সজীব, আওয়ামী লীগ নেতা আবদুল মান্নান প্রমুখ।

ভুক্তভোগীদের অভিযোগ, সরকারিভাবে কাবিটা ও টিআর প্রকল্পের আওতায় প্রতিটি এলাকায় উন্নয়নের জন্য টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। কিন্তু কাবিটা ও টিআর উন্নয়ন প্রকল্পের বরাদ্দের টাকা নিয়ে প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মনিরুল হক দুর্নীতি করেছেন। প্রকল্পের প্রতিটি বরাদ্দ থেকে প্রায় ১০ থেকে ১১ শতাংশ টাকা কেটে নিয়েছেন। তারা জানান, কাবিটা ও টিআর উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় মুড়াপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের মহিলা ইউপি সদস্য লাভলী মানিকের নামে ৫০ হাজার টাকা বরাদ্দ হয়। কিন্তু তাকে ৪০ হাজার টাকা দেয়া হয়। আরেক ইউপি সদস্য রেহানা আক্তার বরাদ্দের ৪৩ হাজার টাকা পান।

এছাড়া ভোলাব ইউনিয়নের যুব মহিলা লীগের সভাপতি ভোলাব শিল্পী আক্তার ৪২ হাজার ৫০০ টাকা ও সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আক্তার ৪০ হাজার টাকা বরাদ্দের ৩৪ হাজার টাকা পেয়েছেন। পিআইও মনিরুল হক প্রতি বরাদ্দ থেকে ১০ থেকে ১১ শতাংশ টাকা কেটে নিয়েছেন বলে ভুক্তভোগীরা অভিযোগ করেন।

এসময় বিক্ষোভকারীরা তার অপসারণ দাবি জানান। তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট বলে জানান অভিযুক্ত পিআইও মনিরুল হক।

আপনার মতামত লিখুন :