বার্নলিকে উড়িয়ে দিলো ম্যান সিটি

0
110

আপাতদৃষ্টিতে লিগ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার সম্ভাবনা প্রায় শেষ। আবার ঝুঁকি নেই উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের পরবর্তী মৌসুমে অংশগ্রহণ নিয়েও। ফলে ম্যানচেস্টার সিটির জন্য ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের বাকি ম্যাচগুলো এখন যেন নিয়মরক্ষার।

তবে কাগজে-কলমে এখনও লিগ জেতার সম্ভাবনা রয়ে গেছে ম্যান সিটির। আর এজন্য সবার আগে নিশ্চিত করতে হবে নিজেদের বাকি থাকা সব ম্যাচে জয় এবং টেবিল টপার লিভারপুলের টানা পরাজয়। দ্বিতীয়টি ম্যান সিটির হাতে নেই, তবে নিজেদের জয় নিশ্চিত করার কাজটি রয়েছে নিজেদের হাতেই।

সেটি করতে গিয়েই তুলনামূলক দুর্বল দল বার্নলির বিপক্ষে রীতিমতো ছেলেখেলা করল পেপ গার্দিওলার শিষ্যরা। নিজেদের ঘরের মাঠে ম্যাচটিতে সিটিজেনদের জয় ৫-০ গোলের বড় ব্যবধানে। দুইটি করে গোল করেছেন ফিল ফোডেন ও রিয়াদ মাহরেজ, অন্য গোল ডেভিড সিলভার।

ম্যাচের প্রথম গোল করেন তরুণ মিডফিল্ডার ফিল ফোডেন। বার্নার্দো সিলভার লম্বা পাস ধরে প্রায় ২০ গজ দূর থেকে জালের ঠিকানা খুঁজে নেন ২০ বছর বয়সী এ তরুণ। প্রথমার্ধের বিরতির ঠিক আগে দিয়ে আরও দুই গোল করে ম্যান সিটি।

এবার নিজেদের রক্ষণভাগ থেকে লম্বা করে বল বাড়ান ফার্নান্দিনহো। তা ধরে দারুণ বুদ্ধিমত্তার সঙ্গে ঠাণ্ডা মাথার ফিনিশিংয়ে গোল করেন মাহরেজ। এর মিনিট দুয়েক পর পেনাল্টি পায় স্বাগতিকরা। স্পট কিক থেকেও গোল করেন মাহরেজ। সার্জিও আগুয়েরোকে ফাউল করা হলে ভিএআরের সাহায্য নিয়ে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি।

ফলে ৩-০ ব্যবধানে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় সিটিজেনরা। দ্বিতীয়ার্ধে ফিরে মাত্র ৬ মিনিটের মাথায় হালি পূরণ করেন স্প্যানিশ মিডফিল্ডার ডেভিড সিলভা। এবারও বলের জোগানদাতা বার্নার্দো সিলভা। ম্যাচের ৬৩ মিনিট গ্যাব্রিয়েল হেসুসের পাস থেকে আলতো ছোঁয়ায় শেষ গোলটি করেন ফোডেন।

এ জয়ের পর ৩০ ম্যাচে ৬৩ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় অবস্থান আরও পাকাপোক্ত হলো ম্যান সিটির। সমান ম্যাচে ৮৩ পয়েন্ট নিয়ে যথারীতি সবার ওপরেই রয়েছে লিভারপুল। অন্যদিকে ৩৯ পয়েন্ট নিয়ে বার্নলির অবস্থান ১১তম।

আপনার মতামত লিখুন :