ইচ্ছে করে আমার মাকসুদা দোলন

0
88

ইচ্ছে করে আমার,
ছোট্ট গাঁয়ে আবার জন্ম নেই;
সারি সারি সুপারি গাছ আর মাটির
গন্ধ শুঁকে মেঠো পথ ধরে হাঁটি ।
চপলা, চঞ্চলা শৈশবের দুরন্তপনার
স্বাদ নেই বারবার,
পুইঁ ফলে হাত রাঙিয়ে, শিউলি ফুলের মালা পরে
ছুটে বেড়াই পথ-ঘাট আর মাঠ।
হাঁসের পাল নিয়ে ছুটে যাই পুকুরে;
সাঁতার কেটে, ঝাঁপিয়ে শাপলা শালুক নিয়ে
চোখ লাল করে, ক্লান্ত দেহ নিয়ে ঘরে ফিরি।

ইচ্ছে করে আমার,
শৈশব পেরিয়ে নব যৌবনে ফিরে যাই
রঙিন স্বপ্ন গুলি মনের খাঁচায় বন্দী করি
যৌবনের রাঙা প্রভাতে,
মনের দুয়ারে যে প্রথম দিবে উঁকি ;
তাকেই ভালোবেসে আপন করে বানাবো জীবন সঙ্গী ।
তার হাতে নিজেকে সঁপে দিয়ে বাঁধবো ঘর;
বধু বেশে পালকিতে চড়ে যাবো ভালোবাসার টানে।
মোরগ ডাকা ভোরে উঠে কলসি কাঁখে
ছুটবো আমি পুকুর ঘাটে,
রবি উঠার সাথে সাথে
লাঙল, জোয়াল কাঁধে নিয়ে
বলদ দুটোর পিছু পিছু;
তুমি হেঁটে যাবে মাঠের দিকে ।

ইচ্ছে করে আমার,
তপ্ত দুপুরে সোনালি ধানের ক্ষেতে;
তুমি ব্যস্ত কাঁচি হাতে।
তোমার খাওয়ার সময় পেরিয়ে যাওয়ার ভয়ে
আমি সব কাজ ফেলে;
উনুনে ভাত চাপিয়ে যাবো লাউয়ের মাঁচার দিকে।
কচি লাউ, পুকুরের মাছের ঝোল রেঁধে;
গামছায় পুটলি বেঁধে মাথায় ঘোমটা টেনে
ছুটে যাবো তোমার পানে।
তালের হাত পাখাটা যাবে সঙ্গে ।
তুমি বসবে পথের ধারে, কড়ই গাছটার ছায়াতলে
ক্লান্ত দেহের মুখের ঘাম;
আমার শাড়ির আঁচলের ছোঁয়া পেয়ে
তোমার সব কষ্ট হবে ম্লান।
অমৃতের স্বাদে খেয়ে হাত পাখার বাতাসে
জুড়াবে তোমার মন প্রাণ ।

ইচ্ছে করে আমার,
সাঁঝের বেলায় সন্ধ্যা বাতি ঘরে
হাঁস মুরগি আর পায়রা গুলি ফিরছে আপন খোপে
নুন জল নিয়ে আমি দৌড়ে যাবো গোয়ালে ;
যে গাভীটা মা হয়েছে আজ সকালে ।
তুমি পায়ে হেঁটে ,খালি পায়ে যাবে দূরের হাটে
সদাই করবে পরমান্দে, সঙে আনবে পান সুপারি ;
মিঠাই সন্দেশ , চুড়ি আর লাল ফিতে।
সন্ধ্যা চুকিয়ে রাত আসবে কাছে,
অধর রাঙিয়ে, চুলের বিনুনিতে লাল ফিতে;
চুড়ি হাতে লাল শাড়ি জড়িয়ে
চান্দের আলোতে তুমি দেখবে আমাকে নতুন রূপে ।
পাশে বসবে কাছে টানবে,
চাঁদকে বলবে থেকে যেতে
তুমি আমাকে বার বার দেখবে বলে
আমার খুব ইচ্ছে করে ।

আপনার মতামত লিখুন :