করোনার মধ্যে হাজার হাজার শ্রমিককে চাকুরিচ্যুত করা অমানবিক: মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাক খেলাফত মজলিসের দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

0
68
খেলাফত মজলিসের আমীর মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাক বলেছেন, করোনাভাইরাসের মহাদুর্যোগ থেকে মুক্তি পেতে মহান আল্লাহর কাছে জাতীয়ভাবে তাওবাহ করতে হবে। পাপাচার, জুলুম, দুর্নীতি পরিহার করতে হবে। আজকে করোনা দুর্যোগের মধ্যে সরকার সকল রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল বন্ধ করে দিয়ে হাজার হাজার শ্রমিককে চাকুরিচ্যুত করে অমানবিক ও অন্যায় কাজ করেছে। এভাবে শ্রমিকদের পেটে লাথি মারা সুস্পষ্ট জুলুম। সরকারকে রাষ্ট্রায়ত্ত সকল পাটকল পুনরায় চালু করে হাজার হাজার মানুষের কর্মসংস্থানকে অব্যাহত রাখতে হবে। খেলাফত মজলিস আয়োজিত এক দোয়া মাহফিলে তিনি এ কথা বলেন।
ব্রেন স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে ৩ মাস যাবৎ অচেতন অবস্থায় চিকিৎসাধীন খেলাফত মজলিসের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ডা: কে এম নজরুল ইসলামের আরোগ্য ও করোনাসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্তদের সুস্থতার জন্য এবং সাম্প্রতিক সময়ে মৃত্যুবরণকারীদের রূহের মাগফিরাত কামনায় আজ বিকাল সাড়ে ৩টায় খেলাফত মজলিসের মহাসচিব মহাসচিব ড. আহমদ আবদুল কাদের এর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত এ ভার্চুয়াল দোয়া মাহফিলে অন্যান্যের মধ্যে সংযুক্ত ছিলেন সংগঠনের নায়েবে আমীর মাওলানা সাখাওয়াত হোসাইন, হাফিজ মাওলানা মজদুদ্দিন আহমদ, মাওলানা আবদুল বাসিত আজাদ, অধ্যাপক আবদুল্লাহ ফরিদ, যুগ্মমহাসচিব- মাওলানা মুহাম্মদ শফিক উদ্দিন, অধ্যাপক মাওলানা আবদুল কাদির সালেহ, এডভোকেট জাহাঙ্গীর হোসাইন, মুহাম্মদ মুনতাসির আলী, মাওলানা আহমদ আলী কাসেমী, ডক্টর’স সোসাইটি অব বাংলাদেশ- ডিএসবি’র সভাপতি ডাঃ আবদুল্লাহ খান, ব্যাংকার্স সোসাইটির সভাপতি আবদুস সমাদ সরকার, হাফিজ মাওলানা নূরুজ্জামান, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক- ড. মোস্তাফিজুর রহমান ফয়সল, মাওলানা এ কে এম আইউব আলী, মাওলানা তোফাজ্জ¦ল হোসাইন মিয়াজী, প্রশিক্ষণ সম্পাদক- অধ্যাপক মুহাম্মদ আবদুল হালিম, এডভাকেট মোঃ মিজানুর রহমান, অধ্যাপক মো: আবদুল জলিল, অধ্যাপক কে এম আলম, মাওলানা শামসুজ্জামান চেীধুরী, মাষ্টার সিরাজুল ইসলাম, বুরহান উদ্দিন সিদ্দকিী, মুক্তিযোদ্ধা ফয়জুল ইসলাম, মাস্টার আবদুল মজিদ, মাওলানা সৈয়দ মুশাহিদ আলী, অধ্যাপক বজলুর রহমান, মাওলানা আজিজুল হক, এম সদরুজ্জামান খান, মাওলানা আহমদ বিলাল, ইঞ্জিনিয়ার মাহফুজুর রহমান, মুফতি সিহাবুদ্দিন, মাওলানা কাজী আসাদউল্লাহ, মাওলানা আবদুল হাই প্রমুখ।
খেলাফত মজলিসের মহাসচিব ড. আহমদ আবদুল কাদের করোনা টেস্টের জন্য সরকারী ফি নির্ধারণের সিদ্ধান্ত বাতিলের দাবী জানিয়ে বলেন, এই মহা দুর্যোগে রাষ্ট্র ও সরকারকে জনগণের পাশে থাকতে হবে। সরাকরের ফি নির্ধারণের ফলে কোভিড টেস্টে মানুষ নিরুৎসাহিত হবে। বিশেষ করে দরিদ্র ও সীমিত আয়ের মানুষ উপসর্গ থাকার পরেও অর্থাভাবে টেস্ট করাতে পারবে না। তাই কোভিড- ১৯ এর আরটি-পিসিআর পরীক্ষায় জন্য ফি নির্ধারণ করে সরকার যে জনস্বার্থ বিরোধী সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয়েছে তা অবিলম্বে প্রত্যাহার করতে হবে। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধ, জনগণের সেবা নিশ্চিতে এবং অব্যবস্থাপনা ও দূর্নীতিতে বিপর্যস্ত স্বাস্থ্য বিভাগের শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহন করতে হবে। একই সাথে সবাইকে স্বাস্থ্য সচেতন হতে হবে এবং স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলতে হবে।
বৈঠকের শেষে সম্প্রতিক সময়ে মৃত্যুবরণকারীদের রুহের মাগফিরাত কামনা করে এবং ডা: কে এম নজরুল ইসলামসহ যারা অসুস্থ আছেন তাদের সুস্থতার জন্য এবং করোনার প্রাদুর্ভাব থেকে মুক্তির জন্য দোয়া মুনাজাত করা হয়। দোয়া-মুনাজাত পরিচালনা করেন আমীরে মজলিস অধ্যক্ষ মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাক।

 

আপনার মতামত লিখুন :