জমি সংক্রান্ত পারিবারিক দ্বন্দ্বে সন্ত্রাসীদের হুমকীতে মিঠু ও তার পরিবার নিরাপত্তাহীনতায় গন্যমান্য ব্যক্তিসহ নারায়ণগঞ্জ পুলিশ প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা

0
131

নারায়ণগঞ্জ শহরের খানপুর মেইনরোড এলাকার স্থায়ী বাসিন্দা মৃত: ইউসুফ খানের একমাত্র ছেলে মোঃ আরিফ খান মিঠু ও তার পরিবার পরিজন নিয়ে চিহ্নিত সন্ত্রাসীদের অব্যাহত হুমকীতে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে বলে অভিযোগে প্রকাশ।

জমি সংক্রান্ত পারিবারিক দ্বন্দ্বে মিঠুর চাচা আইয়ুব খান, তার স্ত্রী ঝর্ণা, ছেলে ইমরান ও ইমরানের স্ত্রী তানিয়াসহ তাদের লালিত-পালিত এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও বহিরাগতদের দিয়ে বেশ কয়েক দিন যাবত জীবন নাশের হুমকী দিয়ে আসছে। শুধু তাই নয় পথিমধ্যে পথ আটকিয়ে মারধর করারও চেষ্টা চালায়। মিঠুর স্ত্রী ও সন্তান ভয়ে শংকিত ও আতংকিত হয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েছে। এলাকায় কয়েকদিন যাবত বহিরাগত ও স্থানীয় গুটি কয়েক মাদক সন্ত্রাসী বাড়ীর আশেপাশে ঘোরাফেরা করে ভয়ভীতি প্রদর্শন করছে এবং মিঠুকে অপহরণ করে উত্তম মাধ্যম দিয়ে গুলি করে মেরে লাশ গুম করার হুমকী দেয়।

জানা যায়, বয়সে তরুন মিঠুর মা-বাবা, ভাই-বোন কেউ না থাকায় আপন চাচা আইয়ুব খান ও তার ছেলে ইমরান সহ চাচার পরিবারের লোকজন দীর্ঘদিন যাবত জমি দখলের জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছে। মিঠুর পৈত্রিক সম্পত্তি দখল করার চেষ্টায় একের পর এক ভয়ভীতি দেখিয়ে সামাজিক মানসম্মান ক্ষুন্ন করার জন্য অপপ্রচার চালাচ্ছে। মিঠুর ছোট ফুফু রানী ও তার স্বামী দেলোয়ার হোসেন গভীর ষড়যন্ত্র করে শেল্টারদাতা হিসেবে আত্মীয়-স্বজনকে বিভ্রান্ত করছে। উক্ত ষড়যন্ত্রকারী দেলোয়ার হোসেন নারায়ণগঞ্জ আদালতে চাকুরী করে বলে কোর্ট নাকি সবসময় পকেটে থাকে। বর্তমানে মিঠু ও তার স্ত্রী সন্তান সহ পরিবার পরিজন নিয়ে চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে।

এ ব্যাপারে মিঠু বলেন, আমি কম্পিউটার অপারেটর হিসাবে কাজ করি বিধায় কোন রকম সংসার চলে যাচ্ছে। কিন্তু আমার দুস্কৃতিকারী আত্মীয়-স্বজনের অব্যাহত হুমকীতে আমি ও আমার পরিবারের সদস্যদের নিয়ে চিন্তিত এবং শংকিত। আমার নিকট আত্মীয় আপন চাচা সহ গুটিকয়েক আত্মীয়-স্বজনের পরিবার আমাকে নিয়ে গভীর ষড়যন্ত্র করছে। আমার সামান্য পৈত্রিক সম্পত্তি দখলের জন্য উল্লেখিত ব্যক্তিরাই আমাকে যে কোন সময় খুন করতে পারে বলে আশংকা করছি। আমি যদি থানা পুলিশের সহযোগিতা নেই এবং তাদের বিরুদ্ধে মামলা-মোকদ্দমা করি তাহলে উল্টো আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা বানোয়াট ভিত্তিহীন মামলা দিয়ে হয়রানী করারও হুমকী দিচ্ছে।

তাই আমি এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিসহ নারায়ণগঞ্জ পুলিশ প্রশাসনের আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করছি। যাতে আমি ন্যায় বিচার পাই।

আপনার মতামত লিখুন :