প্রণোদনা ও সহজ শর্তে ঋণের দাবিতে সোনারগাঁয়ে কিন্ডারগার্টেন এসোসিয়েশনের মানববন্ধন

0
73
নারায়ণগঞ্জ জেলার সোনারগাঁয়ে কিন্ডারগার্টেন এসোসিয়েশনের উদ্যােগে সোনারগাঁ প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান কর্মসূচী পালন করেন কিন্ডারগার্টেন স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষিকারা। করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে চলতি বছরের মার্চ মাস থেকে দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান অনির্দিষ্টকালের জন্যহ বন্ধ ঘোষণা করা হয়। এর ফলে বিপাকে পড়ে যায় দেশের কিন্ডারগার্টেন স্কুলের মালিক ও শিক্ষকরা। আর্থিক ভাবে অসহায় হয়ে শিক্ষকরা ছুটছেন ভিন্ন পেশায়। শিক্ষা ক্ষেত্রে ৩০ শতাংশ অবদান রাখার পরও কিন্ডারগার্টেন স্কুলগুলোর প্রতি নজর দিচ্ছেন না সরকার। এই অবস্থার প্রেক্ষিতে তারা সরকারের সহায়তা কামনায় অবস্থান কর্মসূচীর পালন করেন।
বৃহস্পতিবার (৯ জুলাই) কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন সোনারগাঁয়ে সকল কিন্ডারগার্টেন স্কুলের অধ্যক্ষ, পরিচালক ও শিক্ষক-শিক্ষিকাবৃন্দ। অনুষ্ঠানে কিন্ডারগার্টেন স্কুলের অবদান তুলে ধরে বলেন, বাংলাদেশের প্রাথমিক শিক্ষায় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশাপাশি নিজস্ব অর্থায়নে পরিচালিত কিন্ডারগার্টেন স্কুলগুলো শিক্ষাক্ষেত্রে এক যুগান্তকারী ও সময়োপযোগী ভূমিকা পালন করে চলেছে এবং কিছুটা হলেও বেকারসমস্যা দূরীকরণে ভূমিকা রাখছে। যদি স্কুলগুলো না থাকতো তাহলে শতভাগ শিক্ষা কর্মসূচি ও টেকসই উন্নয়ন বা এসডিজি বাস্তবায়নের জন্য আরও অন্তত ৩০ হাজার স্কুল প্রতিষ্ঠার প্রয়োজন হতো। তার জন্য প্রতিবছর শত শত কোটি টাকা ব্যয় হতো। বলা চলে এ কিন্ডারগার্টেনের মাধ্যমে সরকারের রাজস্বব্যয়ের বিরাট চাপ কমে গেছে।
কিন্ডারগার্টেন স্কুলগুলো কখনই কোন সরকারি অনুদান পায় নাই এবং পাওয়ার জন্য আবেদনও করে নাই। স্থানীয় প্রশাসন বা নির্বাচিত প্রতিনিধিরাও কোন রকম সহযোগিতা করে না। কিন্তু সরকারের পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে হলে প্রতিষ্ঠানগুলো রক্ষা করা এবং এর প্রতি নজর দেয়া একান্ত আবশ্যক। বর্তমানে করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে পুরো দেশের মত আমরাও দিশেহারা। এজন্য দেশের অর্থনীতির টালমাটাল অবস্থায় দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মত কিন্ডারগার্টেন স্কুলগুলোর অবস্থাও শোচনীয়, সরকার যদি সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে না দেয় তাহলে ৭৫% কিন্ডারগার্টেন স্কুল বন্ধ হয়ে যাবে। অনেক শিক্ষক পেশা হারিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছেন। কেউবা হকারি করছেনবা কাঁচা তরকারি বিক্রি করে জীবিকা নির্বাহ করছেন।
এ অবস্থায় সংকট উত্তরণের জন্য কিন্ডারগার্টেনগুলোর পাশে থেকে তাদের আর্থিক সহযোগিতা করার জন্য সরকারের কাছে বিশেষ অনুরোধ জানানো হয়।
আপনার মতামত লিখুন :