শুটিংয়ে ফিরেই কোয়ারেন্টিনে একঝাঁক তারকা

0
44

উদ্বেগ-উৎকণ্ঠায় ছোটপর্দার অভিনয়শিল্পীরা। স্বাস্থ্যবিধি মেনে শর্তসাপেক্ষে শুটিং শুরু করার পর করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন অনেকেই। আক্রান্তদের সঙ্গে শুটিং করায় সংক্রমণের ঝুঁকিতে রয়েছেন একাধিক তারকা। ফলে শুটিং বাকি রেখেই স্বেচ্ছায় কোয়ারেন্টিনে যেতে হয়েছে হাফ ডজনের বেশি তারকাকে। এর মধ্যে বর্তমান সময়ের চাহিদাসম্পন্ন অভিনেত্রী মেহজাবিন চৌধুরী, অভিনেতা জিয়াউল ফারুক অপূর্ব ও আলোচিত নির্মাতা মিজানুর রহমান আরিয়ান অন্যতম। এ তালিকায় সর্বশেষ যুক্ত হয়েছেন আরেক অভিনেত্রী জিনাত শানু স্বাগতা।

প্রায় তিন মাস পর অভিনয়ে ফিরে একটিমাত্র নাটকের শুটিং করছেন স্বাগতা। শামীম জামানের পরিচালনায় নাটকটির শুটিং হয়েছে গাজীপুরের পূবাইলে। তবে শুটিং পরিবেশ ও কলাকুশলীদের অসচেতনতায় সেখানে হানা দিয়েছে করোনা। ফলে এই অভিনেত্রীকেও বাধ্যতামূলক হোম কোয়ারেন্টিনে যেতে হয়েছে।

করোনা সন্দেহে কোয়ারেন্টিনে যাওয়ার প্রসঙ্গে স্বাগতা বলেন, ‘এই পরিস্থিতিতে শুটিং করার কোনো ইচ্ছেই ছিল না। তাই প্রায় সবার কাজই ফিরিয়ে দিয়েছি। তবে শামীম ভাইকে ফেরাতে পারিনি। তাই কাজটি করেছি। কিন্তু শুটিং করতে গেছে অনেকের মধ্যে বেশি কিছু উপসর্গ লক্ষ করি। এভাবে সত্যিকার অর্থেই শুটিং করা সম্ভব নয়। ফলে দ্রম্নত সময়ের মধ্যে কোয়ারেন্টিন নিয়েছি। আমি এখনো শঙ্কামুক্ত নই। তাই সতর্কতা অবলম্বন করেছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘যদিও আক্রান্ত না হই, আর ঈদের আগে পরিস্থিতি ঠিক হয় তবে শুটিংয়ে ফিরব। তাছাড়া এরকম ঝুঁকির মধ্যে কাজ করা সম্ভব নয়।’তার কয়েক দিন আগে ইউনিটের দুজন সদস্যের করোনা পজিটিভ হলে শুটিং বন্ধ রেখে কোয়ারেন্টিনে যান মেহজাবিন চৌধুরী ও জিয়াউল ফারুক অপূর্ব। তারা এখনো করোনা ঝুঁকিতে রয়েছেন।

পাঁচ দিন ধরে কোয়ারেন্টিনে থাকা মেহজাবিনের মধ্যে এখনো করোনার কোনো উপসর্গ দেখা দেয়নি বলে জানিয়েছেন তিনি। তার ভাষ্যমতে, ‘এখনো ভালো আছি। কোভিড-১৯ পরীক্ষা করেছি, তখন নেগেটিভ এসেছে। নিশ্চিত হওয়ার জন্য কয়েক দিনের মধ্যে আবারও পরীক্ষা করব। দেখা যাক কী হয়!’ এরই মধ্যে শারীরিক কোনো সমস্যা বোধ করছেন কি না? এমন প্রশ্নের উত্তরে মেহজাবিন চৌধুরী বলেন, ‘এখন পর্যন্ত ভালো আছি, কোনো সমস্যা দেখা দেয়নি। সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন।’

৮ জুলাই থেকে হোম কোয়ারেন্টিনে থাকা অপূর্বর শারীরিক অবস্থাও ভালো। জানা গেছে, তার মধ্যেও এখন পর্যন্ত করোনার উপসর্গ দেখা যায়নি। তবে ঈদের আগে অপূর্ব ও মেহজাবিনের শুটিংয়ে ফেরা একপ্রকার অনিশ্চিত বলেই ধারণা করা হচ্ছে।

এদিকে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বেড়েই চলছে। প্রতিনিয়ত বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। অনেক দিন ধরেই স্বাভাবিকভাবে চলছে না মানুষের জীবন। ফলে অনুমতি থাকার পরও শুটিংয়ে ফিরতে ভয় পাচ্ছেন বহু তারকা। এর মধ্যে শুটিং ইউনিটে করোনার হানা অভিনয় শিল্পীদের মধ্যে আরও বেশি আতঙ্ক তৈরি করেছে।

অনেকটা বাধ্য হয়ে একই পথে হেঁটেছে অভিনেত্রী অপর্ণা ঘোষও। তিনি একটিমাত্র নাটকে অভিনয় করে বর্তমানে কোয়ারেন্টিনে আছেন। শুটিং করার এক দিন পর হাউসগুলোর অবস্থা মনঃপূত না হওয়ায় সরে দাঁড়িয়েছেন এ অভিনেত্রী। তাছাড়া আলোচিত অভিনেত্রী তানজিন তিশা, অভিনেতা আব্দুর নুর সজল, সিদ্দিকুর রহমান ও অহনা রহমানসহ অনেকেই একই কারণে নাটকের শুটিং থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন। আছেন কোয়ারেন্টিনে।

আপনার মতামত লিখুন :