নারায়ণগঞ্জের রায়হান কবিরের পাশে পুরো দেশকে চান বাবা

0
102

মালয়েশিয়ায় গ্রেফতার বাংলাদেশি তরুণ রায়হান কবিরের পাশে বাংলাদেশকে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়েছেন তার বাবা মো. শাহ আলম। তিনি বলেন, আমার ছেলে কোনো অন্যায় করেনি। বরং দেশের মানুষের হয়ে কথা বলার জন্য অন্যায়ভাবে গ্রেফতার হয়েছে।মালয়েশিয়ায় আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম আল-জাজিরায় সাক্ষাৎকার দেয়ার অপরাধে গতকাল শুক্রবার (২৪ জুলাই) বিকেলে রায়হানকে গ্রেফতার করে সেখানকার নিরাপত্তা বাহিনী। তার আগে রায়হানের ওয়ার্ক পারমিট বাতিল করা হয়।

মালয়েশিয়ায় লকডাউন চলাকালে অভিবাসীদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার নিয়ে আল-জাজিরার ‘১০১ ইস্ট প্রোগ্রাম’র একটি পর্বে ওই সাক্ষাৎকার দেন রায়হান কবির। ‘লকডআপ ইন মালয়েশিয়া’স লকডাউন’ শিরোনামে পর্বটি প্রচারিত হয়। ওই পর্বে ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে রেড জোনে অভিযান চালানোর সময় মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ ও সমালোচনা তুলে ধরা হয়। সেই সাক্ষাৎকার দেয়ার কারণে মালয়েশিয়া কর্তৃপক্ষ এমন ব্যবস্থা নিয়েছে রায়হান কবিরের বিরুদ্ধে।

মালয়েশিয়ার অভিবাসন কর্তৃপক্ষের মহাপরিচালক খাইরুল দাযাইমি দাউদ শনিবার (২৫ জুলাই) বিবৃতিতে বলেন, ‘এই বাংলাদেশি নাগরিককে দেশে ফেরত পাঠানো হবে এবং চিরতরে মালয়েশিয়া প্রবেশ নিষিদ্ধ করতে তাকে কালো তালিকাভুক্ত করা হবে।’

রায়হান কবিরের বাড়ি নারায়ণগঞ্জের বন্দরে। তার বাবা শাহ আলম একটি পোশাক কারখানায় চাকরি করেন। তিনি বলেন, ‘আমার ছেলেকে গ্রেফতারের ছবি মালয়েশিয়া থেকে একজন পাঠানোর পর বিষয়টি আমরা জানতে পারি। আমার ছেলেটা ছোটবেলা থেকেই অন্যায়ের প্রতিবাদ করে। কিন্তু নিজে কোনো দিন কোনো অন্যায় করেনি।’

‘আমার একসময় একটি মুদি দোকান ছিল। সেই দোকানে সিগারেট বিক্রি হতো। শুধু সেজন্য রায়হান আমার দোকানই বন্ধ করতে বাধ্য করে। কারণ রায়হানের কথা ছিল সিগারেট বিক্রি হলে এলাকার ছেলেরা খারাপ হয়ে যাবে।’শাহ আলম জানান, ২০১৪ সালে নারায়ণগঞ্জের তোলারাম কলেজ থেকে উচ্চমাধ্যমিক পাস করে মালয়েশিয়া চলে যান রায়হান। সেখানেই স্নাতক পাস করেন তিনি।

সর্বশেষ দুদিন আগে ছেলের সঙ্গে তাদের যোগাযোগ হয়েছিল জানিয়ে কান্নাজড়িত কণ্ঠে শাহ আলম বলেন, ছেলের চিন্তায় ওর মা অসুস্থ। আমি বিভিন্ন মাধ্যমে শুনেছি, আমার ছেলে অন্যায়ের প্রতিবাদ করে গ্রেফতার হয়েছে। আমার বিশ্বাস ও বাংলাদেশিদের পক্ষে বলেছে, সত্য বলেছে। রায়হান ন্যায়ের পথে ছিল। আমি চাই পুরো দেশ ওর পাশে থাকুক। বাংলাদেশ যেন তার পাশে দাঁড়ায়।

রায়হানের বাবা বলেন, ছোটবেলা থেকেই রায়হান এলাকায় অন্যায়ের প্রতিবাদকারী হিসেবে পরিচিত। এলাকার লোকজনের যে কোনো বিপদে-আপদে সে ঝাঁপিয়ে পড়ে।শাহ আলম তার ছেলের পাশে দাঁড়াতে সরকারের কাছে আবেদন জানিয়েছেন। তার দাবি, রায়হানকে দেশে ফেরত আনার ব্যবস্থা করা হোক।

আপনার মতামত লিখুন :