আজ ঈদের নামাজ পড়লেন শরীয়তপুরের ৩০ গ্রামের মানুষ

0
36

শরীয়তপুরের ছয় উপজেলার প্রায় ৩০ গ্রামে শুক্রবার (৩১ জুলাই) ঈদুল আজহা উদযাপিত হচ্ছে। হজরত সুরেশ্বরী (র.) অনুসারীরা সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে ঈদুল আজহা উদযাপন করছেন।

একই সঙ্গে জেলার বেশ কয়েকটি মসজিদে ছোট আকারে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রতি বছর ঈদের প্রধান বড় জামাত হয় নড়িয়া উপজেলায় অবস্থিত সুরেশ্বর দরবার শরিফ মাঠ প্রাঙ্গণে। সুরেশ্বর দরবার শরিফের পবিত্র দায়রা শরিফ জামে মসজিদে প্রথম জামাত সকাল ৯টায় ও সকাল ১০টায় ঈদের দ্বিতীয় জামাত অনুষ্ঠিত হয়। জামাত শেষে পশু কোরবানির মাধ্যমে ঈদ উদযাপন করছেন তারা।

সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যে শুক্রবার ঈদুল আজহা উদযাপিত হচ্ছে। তাই সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের সঙ্গে মিল রেখে সুরেশ্বর দারবার শরিফের প্রতিষ্ঠাতা হজরত জান শরিফ শাহ সুরেশ্বরী (র.) এর অনুসারীরা ঈদুল আজহা উদযাপন করছেন।

সুরেশ্বর দরবার শরিফের পীর সৈয়দ তৌহিদুল হোসাইন শাহীন নূরী বলেন, সুরেশ্বর দরবার শরিফের পবিত্র দায়রা শরিফ জামে মসজিদে শুক্রবার সকাল ৯টায় প্রথম জামাত ও সকাল ১০টায় ঈদুল আজহার দ্বিতীয় জামাত অনুষ্ঠিত হয়। শরীয়তপুরের ছয়টি উপজেলার ৩০টি গ্রামের প্রায় ৪০ হাজার ধর্মপ্রাণ মুসলমান উৎসাহ-উদ্দীপনা ও ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে ঘরোয়াভাবে ঈদুল আজহা উদযাপন করছেন।

হজরত সুরেশ্বরী (র.) এর অনুসারীরা জানান, সুরেশ্বর দরবার শরিফের প্রতিষ্ঠাতা হযরত জান শরিফ শাহ সুরেশ্বরী (রা.) এর অনুসারীরা প্রায় দেড়শ বছর আগে থেকে সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের সঙ্গে মিল রেখে রোজা রাখেন এবং ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আজহা পালন করেন।

আপনার মতামত লিখুন :