ফ্ল্যাট দখলের চেষ্টা ও হুমকির অভিযোগে এসআই আনোয়ারের বিরুদ্ধে এসপির কাছে অভিযোগ

0
139

পাইকপাড়ায় মালিকানাধীন ফ্ল্যাট বাড়ী বেআইনী ভাবে বেদখল করার অপচেষ্টায় লিপ্ত থাকায় এবং মিথ্যা মামলায় জড়িত করার হুমকী দেওয়ার জন্য নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার এসআই আনোয়ার হোসেনের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য নারায়ণগঞ্জ পুলিশ সুপারের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে ভুক্তভোগী ইমরান হোসেন লিমন নামে এক যুবক।

পুলিশ সুপারের কাছে গত ১৩ আগষ্ট বৃহস্পতিবারের লিখিত অভিযোগে জানা যায় গত ১০ জুন ভুক্তভোগী ইমরান হোসেন লিমনের চাচাতো ভাই মোঃ ফামিদ আহম্মদের নিকট থেকে নারায়ণগঞ্জ সদর থানাধীন পাইকপাড়ার “ম” খন্ডধীন এস.এ-৫৯, আর.এস-১০৩ দাগে ১.২৫ শতাংশ ও ৫৫৭ বর্গফুটের ফ্ল্যাট বিল এওয়াজ হেবা দলিল মূলে মালিক দখলকার নিয়ত হন।

উল্লেখিত ফামিদ আহম্মদ উপরোক্ত ফ্ল্যাট ও ভূমি দরখাস্তকারী বরাবরে প্রদান করে অন্যত্র চলে গেলে ইমরান হোসেন লিমনের ভাই আশরাফ হোসেন মিলন ষড়যন্ত্র করে ফ্ল্যাট বাড়ীটি দখল নেবার চেষ্টা করে। তখন এলাকাবাসী বাধা প্রদান করলে ষড়যন্ত্রকারী মিলন ২০১৮ সালের ৩১ জুলাই স্থাপনাবিহীন ২ শতাংশ বাড়ী হেবা সূত্রে মালিক ও দলিল মূলে ফ্ল্যাট প্রাপ্ত না হলেও ফ্ল্যাটের জমি হেবা সূত্রে প্রাপ্ত হয়েছে বলে দাবী করে। ঐ সময় ফ্ল্যাটের দখল না ছাড়লে বিভিন্ন মিথ্যা মামলার ভয়ভীতি প্রদর্শন করে ভুক্তভোগীকে।

পরবর্তীতে আশরাফ হোসেন মিলন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট নারায়ণগঞ্জ আদালতে পিটিশন মামলা দায়ের করলে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার এসআই আনোয়ার হোসেন দখল প্রতিবেদন দাখিল করেন।

অথচ এসআই আনোয়ার হোসেন সরজমিনে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করলে স্থানীয় লোকজনের সম্মুখে কাগজপত্র পর্যলোচনা করে দেখেন যে ফ্ল্যাট বাড়ীটি ইমরান হোসেন লিমনের দখলে, কিন্তু মিলন স্থাপনাবিহীন ভুমিতে মালিক। পরদর্শনের সময় স্থানীয় কাউন্সিলর আব্দুল করিম বাবু ও এলাকাবাসী ভুক্তভোগী ইমরান হোসেন লিমনের পক্ষে সমর্থন করলেও এসআই আনোয়ার হোসেন গত ৫ আগষ্ট লিমনকে থানায় যেতে বলে। এসআই আনোয়ার হোসেনের কথামতো আইনের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে লিমন থানায় গেলে মিলনের দায়েরকৃত মিথ্যা মামলায় লিমনকে গ্রেফতার করে কোর্টে প্রেরণ করে। মামলা নাম্বার ৫(৮)২০২০।

আদালত থেকে ইমরান হোসেন লিমন জামিনে মুক্তি হয়ে বাসায় ফিরলে এসআই আনোয়ার হোসেন বিভিন্ন সময় ফ্ল্যাট ও বাড়ীর মালিকানা এবং দখলাদি ত্যাগ না করলে মাদক সহ মিথ্যা অস্ত্র মামলা দিয়ে লিমনকে হয়রানী করার হুমকী দেয়।

বর্তমানে ইমরান হোসেন লিমন ও তার পরিবার পুলিশের এমন হুমকীতে জীবনের চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে বলে পুলিশ সুপারের কাছে লিখিত অভিযোগে জানান। এ বিষয়ে দ্রুত এসআই আনোয়ার হোসেনের বিরুদ্ধে তদন্ত পূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেয়া সহ ইমরান হোসেন লিমনের নিরাপত্তার ব্যবস্থা জোরদার করার জোর দাবী জানান ভুক্তভোগী।

আপনার মতামত লিখুন :