এক মাসের মধ্যে পুলিশে পরিবর্তন ঘটবে: মোস্তাফিজুর রহমান

0
37
অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মো. মোস্তাফিজুর রহমান বলেছেন, প্রত্যেক ডিউটি অফিসারের রুমে সিসি ক্যামেরা লাগানো হবে। সেই ক্যামেরা মনিটরিং করা হবে পুলিশ সুপারের অফিস থেকে।
আমরা আপনাদের ভিতর থেকেই পুলিশ। আমরা একই দেশের নাগরিক। পুলিশ সুপার চান একটি ভালো পুলিশিং ব্যবস্থা কায়েম করতে। থানায় যদি টাকা চায় কিংবা খারাপ আচরণ করে তাহলে আমাদের জানান দেখেন আমরা ব্যবস্থা নেয় কিনা। কিন্তু অনৈতিক সুবিধা কিংবা জোর করে কাজ করাতে চাইবেন সেটা হবে না। ৩ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার দুপুর ১২ টায় নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার ওপেন হাউজ ডে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
কমিউনিটি পুলিশিং ও নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার উদ্যোগে এই ওপেন হাউজ ডে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, পুলিশ সুপার ও আমার পূর্বের কর্মস্থল মুন্সিগঞ্জে ঘুষমুক্ত পুলিশ হিসেবে কাজ করেছি। কেউ বলতে পারবে না আমরা একটা টাকা ঘুষ নিয়েছি। আমরা আগামী এক মাসের মধ্যে একটি বড় পরিবর্তন আনতে চাই।
এজন্য আপনাদের সহযোগিতা করতে হবে। মাদক নির্মূল পুলিশের একা সম্ভব না। এর আগের কর্মস্থলে মাদক নির্মূলে অনেকগুলো ছোট ছোট কমিটি করেছিলাম। সেটার ভাল ফল পেয়েছিলাম। কোনো কিছুই করতে পারবো না যদি আপনারা সহযোগিতা না করেন। সবাই মিলে ভাল পুলিশিং ব্যবস্থা করতে চাই। তিনি আরও বলেন, আপনাদের ট্যাক্সের পয়সায় আমাদের বেতন হয়। আপনাদের সেবক হিসেবে কাজ করতে চাই। আপনারা আমাদের যোগ্য অভিভাবক হিসেবে কাজ করতে চাই। পুলিশ সুপারের অফিস আপনাদের জন্য অবমুক্ত।
যখন কোনো সমস্যা মনে করবেন তখনই চলে যাবেন। আমরা ন্যায়সঙ্গত সহযোগিতা করতে চাই। সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় আগালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার যে অঙ্গিকার ২০২১ সালে মধ্যম আয়ের দেশে ২০৪১ সালে উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত হবে।
নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ আসাদুজ্জামানের সভাপতিত্ব ও নারায়ণগঞ্জ জেলা রোভারের কমিশনার আরিফ মিহিরের সঞ্চালনায় উপস্থিত ছিলেন সিটি কর্পোরেশনের ১৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর অসিত বরণ বিশ্বাস, জেলা কমিউনিটি পুলিশের সভাপতি ডা. শাহনেওয়াজ, মহানগর সভাপতি মোঃ সোলেয়মান, সদর থানা কমিউনিটি পুলিশের সভাপতি শংকর সাহা ও সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান টুলু সহ বিভিন্ন পর্যায়ের ব্যক্তিরা।
আপনার মতামত লিখুন :