বিউটিশিয়ানকে নির্যাতন করে চুল কেটে দিলেন সাবেক স্বামীর স্ত্রী

0
54

নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলায় এক নারী (৩২) বিউটিশিয়ানকে পার্লারের দরজা আটকে মাথার চুল কেটে নেয়াসহ মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করা হয়েছে। ৮ সেপ্টেম্বর বড়াইগ্রাম উপজেলার আহম্মেদপুর শওকত প্লাজার রোজী বিউটি পার্লারে এ নির্যাতনের ঘটনা ঘটে। গত ১৬ দিনেও এ ঘটনায় মামলা রেকর্ড করেনি পুলিশ।

নির্যাতনের শিকার নারী জানান, ৮ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় তিনি শওকত প্লাজায় রোজী বিউটি পার্লার বন্ধ করার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। হঠাৎ করে সেখানে উপস্থিত হোন সাবেক স্বামী বনপাড়া বাজারের আল আমিন হোটেলের মালিক আলমগীর হোসেনের স্ত্রী পান্না খাতুন, ছোট ভাই ফারুক হোসেন ও তার স্ত্রী হীরা বেগমসহ সাবেক শ্বশুরবাড়ির কয়েকজন সদস্য।

তারা বিউটি পার্লারের দরজা বন্ধ করে তাকে বেধড়ক মারপিট করে মাথার চুল কেটে দেন। এরপর টেনেহিঁচড়ে বাইরে নিয়ে পার্লারের সামনে ফেলে নির্যাতন করা হয়। স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে পল্লী চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যায়। ঘটনার দিনই নির্যাতিত নারী সাবেক স্বামী আলমগীর হোসেন, স্ত্রী পান্না খাতুনসহ সাতজনের বিরুদ্ধে বড়াইগ্রাম থানায় মামলা করতে যান। মামলার এজাহার দিলেও ১৬ দিনে মামলা নথিভুক্ত করেনি পুলিশ।

নির্যাতনের শিকার নারী বলেন, বনপাড়া বাজারে বিউটি পার্লার থাকাকালে হোটেল ব্যবসায়ী আলমের সঙ্গে সম্পর্ক হয়। গত নভেম্বরে আমরা বিয়ে করি। কিন্তু এই বিয়ে আলমের পরিবার মেনে নেয়নি। এজন্য চার মাস আগে আমাকে তালাক দেয় আলম। তালাকের পর থেকে তার সঙ্গে কোনো যোগাযোগ নেই। এরপরও আমার ওপর বর্বর নির্যাতন চালানো হয়।

বড়াইগ্রাম থানা পুলিশের ওসি দিলীপ কুমার দাস বলেন, নির্যাতনের শিকার ওই নারীর অভিযোগ পেয়েছি। তদন্তে অভিযোগের সত্যতা পেলে মামলা গ্রহণ করা হবে।

বনপাড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ মো. তহিদুল ইসলাম বলেন, চার মাস আগে ওই নারীর সঙ্গে আলমগীরের ছাড়াছাড়ি হয়। পুনরায় তাদের মধ্যে সম্পর্ক হওয়ার খবর পেয়ে আলমগীরের প্রথম স্ত্রীসহ কয়েকজন ওই নারীকে মারপিট করে চুল কেটে দেয়। এ ঘটনায় অভিযোগ দিয়েছেন ভুক্তভোগী।

আপনার মতামত লিখুন :