চাকরি করে স্বাবলম্বী হতে চাওয়াটাই কাল হলো প্রবাসীর স্ত্রীর

0
56

লাকি শুধু গৃহবধূ থাকতে চাননি। চেয়েছিলেন চাকরি করতে। কিন্তু স্বামী আশরাফ আলী সৌদি আরব থেকে ফেরেন মঙ্গলবার (২৯ সেপ্টেম্বর)। এসেই স্ত্রীর আব্দার না করে দেন তিনি। এতে অভিমান করে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন লাকি।

তবে স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজন প্রচার করেছিলেন লাকি বিদ্যুৎস্পৃষ্টে মারা গেছেন। পরে পুলিশ প্রবাসী স্বামীকে আটক করলে তিনি দাম্পত্য কলহের কথা স্বীকার করেন। পাবনার সুজানগর উপজেলার গুনাইগাছা ইউনিয়নের চরমথুরাপুর গ্রামে শুক্রবার (২ অক্টোবর) রাতে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় সৌদি প্রবাসী আশরাফ আলীকে শনিবার গ্রেফতার দেখিয়ে জেলহাজতে পাঠিয়েছে পুলিশ।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, প্রায় বছর দশেক আগে সুরাইয়া পারভীন লাকির সঙ্গে আশরাফ আলীর বিয়ে হয়। এর কিছুদিনের মাথায় আশরাফ সৌদি আরবে পাড়ি জমান। তাদের ঘরে ৯ বছর বয়সী একটি ছেলে রয়েছে। চার দিন আগে আশরাফ আলী সৌদি আরব থেকে দেশে ফেরেন। স্বামী দেশে ফেরার পর সুরাইয়া পারভীন চাকরি করে নিজে স্বাবলম্বী হওয়ার কথা জানান। কিন্তু স্বামী চাকরি করতে দেবেন না বলে জানিয়ে দেন। এ নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হয়।

পরে লাকি বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মারা গেছেন বলে প্রচার করে শনিবার (৩ অক্টোবর) সকালে তার দাফনের ব্যবস্থা করতে থাকেন শ্বশুরবাড়ির লোকজন। খবর পেয়ে স্বজনরা ঘটনাস্থলে গিয়ে পৌঁছান। তারা লাকির গলায় কালো দাগ দেখতে পান। পরে মৃত্যুর বিষয়টি সন্দেহজনক হওয়ায় পুলিশে খবর দেন স্বজনরা। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে সুরাইয়া পারভীনের লাশ উদ্ধার করে।

এ সময় তার স্বামী আশরাফ আলীকে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

পুলিশের জিজ্ঞসাবাদে আশরাফ আলী জানান, পারিবারিক কলহের কারণে তার স্ত্রী (সুরাইয়া পারভীন) বাথরুমের ভেতরে রডে গামছা পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেছে। তবে বাথরুমের রড ও গামছা সরিয়ে ফেলা হয়। তার দেয়া তথ্যমতে গামছাটি উদ্ধার এবং আশরাফ আলীকে প্রথমে আটক ও পরে গ্রেফতার দেখিয়ে জেলহাজতে পাঠায় পুলিশ।

এ ব্যাপারে চাটমোহর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুল ইসলাম বলেন, লাকির পরিবারের কোনো অভিযোগ নেই। তবে মৃত্যুর বিষয়টি সন্দেহজনক মনে হওয়ায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এছাড়া স্বামী আশরাফ আলীকে ৫৪ ধারায় গ্রেফতার দেখিয়ে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট পাওয়ার প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে। এ ব্যাপারে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান ওসি।

আপনার মতামত লিখুন :