ময়নাতদন্ত ও পরকীয়ায় ডুবলেন সুরজিত

0
63

ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পরিবর্তনের চেষ্টা ও পরকীয়া প্রেমে জড়ানোয় খুলনা জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সুরজিত মন্ডলকে (২৫) দল থেকে বহিষ্কার করা হয়ছে। শনিবার (০৩ অক্টোবর) খুলনা জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. পারভেজ হাওলাদার ও সাধারণ সম্পাদক মো. ইমরান হোসেন স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে তাকে বহিষ্কার করা হয়।

সুরজিত মন্ডল বটিয়াঘাটা উপজেলার তেঁতুলতলা এলাকার বাসিন্দা গোলক মন্ডলের ছেলে। বর্তমানে তিনি খুলনা জেলা কারাগারে রয়েছেন।

জানা গেছে, খুলনা মহানগরীর আহসান আহমেদ রোডের বাসিন্দা ব্যবসায়ী মো. হোসেন সাকের (৫৫) হত্যা মামলার তদন্ত পরিবর্তন করতে সুরজিত মোটা অংকের আর্থিক লেনদেন করেছিলেন। সেই অভিযোগে পিবিআই তাকে গ্রেফতার করে গত রোববার আদালতে সোপর্দ করে। আদালতে সুরজিত মন্ডল ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। এছাড়াও গত কয়েকদিন ধরে সুরজিত মন্ডলের সঙ্গে এক প্রবাসীর স্ত্রীর আপত্তিকর ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। যা নিয়ে বেশ সমালোচনা চলছে।

সাকের হত্যা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পিবিআই খুলনার পুলিশ পরিদর্শক একেএম মাহফুজুল হক জানান, মো. হোসেন সাকের হত্যাকাণ্ডের পর তার ময়নাতদন্ত রিপোর্ট আসামিদের পক্ষে নিতে মিডিয়া হিসেবে কাজ করেছে সুরজিত মন্ডল। তার সম্পৃক্ততার বিষয়ে তিনি আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

খুলনা জেলা ছাত্রলীগের দফতর সম্পাদক মুন্না বলেন, সংগঠন বহির্ভূত কর্মকাণ্ডে লিপ্ত থাকার দায়ে তাকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :