নারীকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন, প্রতিবাদে একাই শহীদ মিনারে ফারহানা

0
67

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলায় নারীকে বিবস্ত্র করে নির্যাতনের প্রতিবাদে নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে অবস্থান নিয়েছেন সরকারি তোলারাম কলেজের শিক্ষার্থী ফারহানা মানিক মুনা। তিনি শুরুতে একাই অবস্থান নিলেও সময় গড়ার সঙ্গে সঙ্গে আরও কয়েকজন নারী মুনার সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করে শহীদ মিনারে অবস্থান নেন। সোমবার (০৫ অক্টোবর) নারায়ণগঞ্জ শহীদ মিনারে সকাল থেকে এ অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন তিনি।

অবস্থান কর্মসূচি প্রসঙ্গে তোলারাম কলেজের শিক্ষার্থী ফারহানা মানিক মুনা বলেন, আমরা ভিডিওতে দেখেছি একজন নারীকে বিবস্ত্র করে সম্মানহানি করা হয়েছে। ওই নারীকে যৌন হয়রানি করে নগ্ন উল্লাস করেছে হায়েনার দল।

তিনি বলেন, প্রতিদিন ধর্ষণ, নির্যাতন ও হত্যাকাণ্ড ঘটলেও বিচার পাচ্ছেন না ভুক্তভোগীরা। এই বিচারহীনতার ফলে ধর্ষণের মাত্রা বাড়ছে দিন দিন। একজন শিক্ষার্থী এবং নারী হিসেবে এ ধর্ষণের বিচারের দাবিতে অবস্থান নিয়েছি।

ফারহানা মানিক মুনা বলেন, আমাদের নিরাপত্তার নিশ্চয়তা আমাদের গড়তে হবে। আমরা শিক্ষার্থীরা যদি নিজেদের জায়গা থেকে সোচ্চার না হই তাহলে এর থেকে পরিত্রাণ নেই। ধর্ষণের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড হলে এবং আইনের প্রয়োগ থাকলে ধর্ষণের মাত্রা বৃদ্ধি পেত না। বিচারহীনতার সংস্কৃতি ভেঙে বিচারব্যবস্থা শক্তিশালী করতে হবে।

২ সেপ্টেম্বর দীর্ঘদিন পর বাবার বাড়িতে তার স্বামী তার সঙ্গে দেখা করতে আসেন। রাত ৯টার দিকে শয়নকক্ষে স্বামী-স্ত্রী একসঙ্গে ছিলেন। এ সময় বাদল, রহিম, আবুল কালাম, ইসরাফিল হোসেন, সাজু, সামছুদ্দিন সুমন, আবদুর রব, আরিফ ও রহমত উল্যাসহ অজ্ঞাত আসামিরা দরজা ভেঙে ঘরে প্রবেশ করেন।

এরপর তার স্বামীকে মারধর করে পাশের কক্ষে নিয়ে আটকে রাখেন। একপর্যায়ে তারা ওই গৃহবধূকে বিবস্ত্র করে ধর্ষণের চেষ্টা করেন। এতে রাজি না হলে তারা তার ওপর নির্মম নির্যাতন চালান এবং মুঠোফোনে ভিডিও ধারণ করেন।

গৃহবধূর চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এলে আসামিরা কাউকে কিছু জানালে হত্যার হুমকি দেন। আসামিরা চলে যাওয়ার পর কাউকে কিছু না জানিয়ে নির্যাতিত ওই গৃহবধূ জেলা শহর মাইজদীতে বোনের বাড়িতে আশ্রয় নেন।

সেখানে থাকা অবস্থায় মুঠোফোনে আসামিরা তাদের প্রস্তাবে রাজি না হলে নগ্ন ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দেন। একপর্যায়ে রোববার দুপুরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ওই ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে।

আপনার মতামত লিখুন :