সিলেটে মাদরাসাছাত্রীকে ধর্ষণ, দুই যুবক গ্রেফতার

0
48

সিলেট নগরের আখালিয়া এলাকায় শিশু ধর্ষণের মামলায় দুজনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। বুধবার (০৭ অক্টোবর) দুপুরে গোপন তথ্যের ভিত্তিতে আখালিয়াস্থ বড়টিলা এলাকা থেকে রুম্মান মিয়া ও জহিরুল ইসলামকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। ধর্ষণের শিকার শিশুটি স্থানীয় একটি মাদরাসার চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী।

গ্রেফতারকৃত রুম্মান মিয়া আখালিয়া এলাকার বড়বাড়ি সি ব্লকের জালালিয়া ১২ নম্বর বাসার মৃত মফিজুল ইসলামের ছেলে এবং সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার তেগরিয়া গ্রামের সুহেল মিয়ার ছেলে জহিরুল ইসলাম জনি। বর্তমানে জনি আখালিয়া বড়বাড়ির বন্ধন ডি/১৮ শহীদ মিয়ার কলোনিতে বসবাস করছেন।

সিলেট মহানগর পুলিশের জালালাবাদ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অকিল উদ্দিন এসব তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, ধর্ষণের মামলায় র‌্যাব দুজনকে গ্রেফতার করেছে। এখনও তাদের থানায় হস্তান্তর করা হয়নি।

এ ঘটনায় গত শনিবার (০৩ অক্টোবর) জালালাবাদ থানায় মামলা দায়ের করেন ধর্ষণের শিকার স্কুলছাত্রীর বাবা। মামলার পর দুজনকে গ্রেফতার করা হয়।

মামলার এজাহার থেকে জানা গেছে, নির্যাতিত মাদরাসাছাত্রী ২৫ সেপ্টেম্বর রাতে তার ভাইয়ের বন্ধু জহিরুল ইসলাম জনির স্ত্রী অসুস্থ শুনে দেখতে যায়।

রাত ১২টার দিকে আখালিয়ার বড়টিলা এলাকার বাসিন্দা রুম্মান মিয়া (২৬) জহিরুল ইসলাম জনির বাড়ির সামনে এসে ছাত্রীকে ডাকাডাকি শুরু করে। তখন বাইরে আসতে না চাইলেও জনির কথায় বের হয় ছাত্রী। বের হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে মাদরাসাছাত্রীর মুখ বেঁধে স্থানীয় শহীদ মিয়ার কলোনির একটি কক্ষে নিয়ে ধর্ষণ করেন রুম্মান।

এর আগে সিলেট নগরের শামীমাবাদ আবাসিক এলাকায় ঘরে ঢুকে এক গৃহবধূকে ধর্ষণ করা হয়। এ ঘটনায় জড়িত দিলাওয়ার হোসেন ও তার সহযোগীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

২৯ সেপ্টেম্বর এক কিশোরীকে বাসার ছাদে নিয়ে ধর্ষণ করেন এক ছাত্রলীগকর্মী। এ ঘটনায় গত শুক্রবার ছাত্রলীগকর্মী রাকিব হোসাইন নিজুকে আসামি করে কোতোয়ালি থানায় মামলা করেন কিশোরীর মা। শনিবার সন্ধ্যায় সিলেটের গোলাপগঞ্জ উপজেলা থেকে ছাত্রলীগকর্মী নিজুকে গ্রেফতার করা হয়।

২৫ সেপ্টেম্বর রাতে এমসি কলেজে স্বামীর সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার হন এক গৃহবধূ। রাত সাড়ে ৮টার দিকে স্বামীর কাছ থেকে ওই গৃহবধূকে জোর করে তুলে নিয়ে ছাত্রাবাসের সামনে প্রাইভেটকারের মধ্যে পালাক্রমে ধর্ষণ করেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এ সময় কলেজের সামনে তার স্বামীকে আটকে রাখে দুইজন।

আপনার মতামত লিখুন :