প্রযোজক পরিবেশক সমিতিতে রংবাজী ছবি নিয়ে অভিযুক্ত অভিনেত্রী অরিন

0
39
ইমরুল শাহেদ : ঢাকা ও কলকাতার টালিগঞ্জ পাড়ায় সুপরিচিত অভিনেত্রী অরিনের বিরুদ্ধে রংবাজী ছবির প্রযোজক রনি ৬৪ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণের অভিযোগ করেছেন প্রযোজক পরিবেশক সমিতিতে। অভিযোগে বলা হয়েছে, অরিন ছবিটিতে অভিনয় করলেও তিনি বলেছেন ছবির প্রচারপত্র তথা পোস্টার, ব্যানার ও ফটো সেটে যেন তার ছবি ব্যবহার করা না হয়। এই অভিযোগের প্রেক্ষিতে সম্প্রতি প্রযোজক রনি, অভিনেত্রী অরিন ও প্রযোজক পরিবেশক সমিতির কর্মকর্তারা এই সমস্যা সমাধানের জন্য আলোচনায় বসেন। সে আলোচনা সিদ্ধান্ত ছাড়াই শেষ হয় এবং অরিন বলেছেন, তাকে বলা হয়েছে প্রযোজক পরিবেশক সমিতি যে সিদ্ধান্ত নেয় সেটা যেন তিনি মেনে নেন। অরিন বলেন, ‘আমি তাদের সিদ্ধান্ত কেন মেনে নেব? আমি কথা বলেছি। কিন্তু কেউ আমার কথাকে গুরুত্ব না দিয়ে সবাই প্রযোজকের পক্ষেই বলেছেন। এই ছবিটি শুরু হয় ২০১৩ কি ’১৪ সালে। তখন ছবিটির পরিচালক ছিলেন এমএ রহিম। তার সঙ্গেই আমার সব কথা হয়েছে। কিন্তু ছবিটি শেষ করেছেন কমল সরকার। তার সঙ্গে আমার কোনো কথা হয়নি। আমি ছবিটির ৫ দিনে কিছু কাজ করেছি। পরে ২০১৯ সালে এসে তারা আমার কাছে শিডিউল চান। তখন আমি কলকাতার ছবিতে খুব ব্যস্ত।’ অরিন বলেন, ‘রহিম ভাই আমাকে বলেছেন বিন্দিয়া আর আমি – দুই নায়িকারই চরিত্র সমান। আমরা থাকব দুই বোন। মূলত রহিম ভাইয়ের জন্যই আমার ছবিটি করা। আমাদের দু’জনের নায়ক আলাদা। কাজ করতে গিয়ে দেখা গেল প্রযোজক নিজেই নায়ক হিসেবে ক্যামেরার সামনে দাঁড়িয়ে গেছেন। যাহোক, প্রযোজক আমার পারিশ্রমিকের এক লাখ টাকা দেননি। এক লাখ টাকাতো দূরের কথা, তিনি আমাকে কোনো পারিশ্রমিকই দেননি। আমি সেটা প্রযোজক পরিবেশক সমিতির বৈঠকে বলেছি। সেটা তারা কানে না নিয়ে একজন প্রযোজক আমাকে যাতাভাবে অপমান করেছেন। আমি মাথা নিচু করে সব কথা হজম করেছি।’ তিনি বলেন, ‘দেখি কি হয়, সে অনুযায়ী আমি আমার ব্যবস্থা নেব।’ রংবাজী ছবিটি বর্তমানে মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে। তিনি বলেন, ‘আমার কাজ অসমাপ্ত রেখেই ছবিটির কাজ শেষ করা হয়েছে। ছবিটির নির্মাণ পর্যায়ে এতোদিন প্রযোজক কোনো কথা বলেননি। এখন ছবি মুক্তির সময়ে আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন। দেখি কি হয়, সে অনুযায়ী আমি আমার ব্যবস্থা নেব।’ কি ব্যবস্থা নিবেন সেটা তিনি বলেননি। দীর্ঘ আলাপচারিতায় তিনি বলেছেন, ‘প্রযোজক পরিবেশক সমিতির আলোচনায় বলা হয়েছে আমি নাকি রংবাজী ছবির কারণেই কাজী হায়াতের ছিন্নমূল ছবিতে কাজ করার সুযোগ পেয়েছি। আসল ঘটনা হলো রংবাজী ছবিটির আগে আমি এটিএন বাংলা চ্যানেলের সঙ্গে দুটি ছবিতে চুক্তিবদ্ধ ছিলাম। এই দিক বিবেচনা করেই পরিচালক রহিম ভাইয়ের রংবাজী ছবিতে আমাকে চরিত্রের ব্যাপারে অন্য হিরো নেয়ার কমিটমেন্ট ছিল। কিন্তু পরবর্তীতে পরিচালক এমএ রহিম ভাইকে পরিবর্তন করে কমল সরকারকে দিয়ে ছবিটির কাজ শেষ করা হয়, যা আমাকে জানাননি প্রযোজক।’ প্রসঙ্গত ২০১০ এ লাক্স-চ্যানেল আই সুপারস্টার টপ ৬ হয়ে মিডিয়া জগতে কাজ শুরু করেন অরিন। প্রথম ছবি এটিএন বাংলা মাল্টিমিডিয়া প্রোডাকশনের রাজু আহমেদের ‘অসম প্রেম’। তিনি এটিএন বাংলার কাজী হায়াতের ছবি ছিন্নমূলের মাধ্যমে চলচ্চিত্রে নায়িকা হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন।
আপনার মতামত লিখুন :