সুখী হতে চাইলে

0
159

আমরা হয়তো প্রায়ই সিনেমায়, নাটকে, গল্পের বইয়ে পড়ে থাকি কিভাবে অল্পতেই মানুষ সুখী হয়ে যায় বা অল্প কাজের মাধ্যমেই নিজেকে সুখী করতে পারে। এটি অর্থ দিয়ে কেনা যায় না। এটিই একটি মাত্র মানসিক অনুভুতি যা মানুষ তার ব্যক্তিগত জীবনে সত্যিকার অর্থে অনুভব করে। এতে কোনো বাহ্যিক মিশ্রণ নেই। তবে সব চেয়ে কঠিন কাজটিই হচ্ছে সুখী হওয়া। ইচ্ছে করলে আপনিও সুখী হতে পারেন। আমাদের প্রতিদিনের করা কাজগুলোর দিকে নজরদিলেই আমরা দেখতে পাই যে কিভাবে আমরা আমাদের সুখে বা হাসিখুশি রাখতে পারি।

নিজের জন্য পার্থিব স্থান তৈরি করুন
আমরা সবসময় আমাদের কাছের মানুষের কাছে আমাদের না পাওয়ার কথাগুলোই বেশি বলে থাকি। পাওয়ার গল্পগুলো তাদের সাথে তেমন ভাবে ভাগাভাগি করে নেওয়া হয় না। তাছাড়া আপনার জীবনের সফলতার গল্পগুলোও তাদের সাথে শেয়ার করুন, দেখবেন নিজের কাছেই ভালো লাগছে। এতে আপনার মাঝে এসব কাজ করার উপলব্ধি যেমন বৃদ্ধি পাবে তেমনি অন্যরাও আপনাকে দেখে অনুপ্রাণিত হবে। যা আপনাকে আনন্দ দেবে।

নিজের সম্পর্কে লিখুন
প্রতিদিন আপনার করা ৫ ধরনের কাজ লিখে রাখুন। প্রথমত কি ধরনের কাজ আপনি গ্রহণ করতে পারবেন। দ্বিতীয়ত সেসব কাজ খুঁজে বের করুন যা আপনি ইতিমধ্যে করে ফেলেছেন। এরপর আপনি করতে চাচ্ছেন এমন তিনটি কাজের তালিকা তৈরি করুন। যখন দেখবেন আপনার সম্পন্ন করা কাজ এবং করতে চাচ্ছেন এই কাজগুলোর মধ্য মিল রয়েছে এবং অনেকগুলো আপনি ইতিমধ্যে করে ফেলেছেন, দেখবেন আপনি অন্যরকম এক আনন্দ পাচ্ছেন। যা আপনাকে সামনে নিয়ে যেতে আরো অনুপ্রাণিত করবে।

ক্ষমা করতে শিখুন
ক্ষমার মতো মহৎ গুণ আর দুটো নেই। ক্ষমা করতে পারা অনেক বড় গুণ। বড় বড় আপরাধ করে অনুতপ্ত হয়ে ক্ষমা চাইলে তাকে ক্ষমা করা উচিত, দু`বার ভাবা উচিত না। এতে যেমন আপনার মহানুভবতার কথা প্রকাশ পায় তেমনি আপনার ধৈর্য্যও বৃদ্ধি পায়। আর ক্ষমা করার পর আপনার ভেতর কাজ করে এক পরতৃপ্তি যা আপনাকে পরবর্তীতে আনন্দ দেয়।

মুহূর্তগুলোকে জমিয়ে রাখুন
আপনার আনন্দের মুহূর্তের সময় গুলোর কথা ডায়েরিবন্দি করে রাখুন। যখন মন খারাপ হবে পড়বেন দেখবেন আপনি মুহূর্তেই পুলকিত হয়ে উঠছেন। আনন্দে ভরে উঠছে আপনার মন।

 

মডেল: সানজিতা আক্তার মীম
ছবি: ফটোগ্রাফার ওমর
আপনার মতামত লিখুন :