আজ এগারো নভেম্বর বিথী রহমান

0
154
আজ এগারো নভেম্বর
আমাদের ভালোবাসার যুগপূর্তি
অবশ্য ‘আমাদের’ কেন বলছি?
আমরা কি আর আমাদের আছি!
আমি-তুমিতে বিভক্ত হয়েছি তাও তো ছ’সাত হলো
তবু বছরান্তে কীসের হিসাব কষি কর গুনে গুনে
কে জানে!
সুশান্ত, তুমিও কি তাই করো?
হিসাব করো যুগল পথচলার?
নাকি ভাঙনের ঢেউ গুনে জীবনকে সাজাও গোঁজামিলে?
বারো বছর আগের এক নরোম রোদের সকালে
আমার দরোজায় তোমার আকস্মিক আগমন
সেই থেকে ভুগে যাচ্ছি ভালোবাসাজনিত অসুখে
অসুখ নয়তো কী!
ব্যক্তিগত দুঃখে যে অন্ধ হয়ে যায়
রাষ্ট্র কিংবা সমাজের দুঃসময় যাকে আন্দোলিত করে না
সে আর যাই হোক, প্রেমিকা হতে পারে না
সে অসুস্থ, স্বার্থান্ধ
প্রেমিকা হলে এসব ভালোবাসা-বাসি শিকেয় তুলে
আজ আমি থাকতাম প্রতিবাদী ম্রোদের দলে
পাহাড় রক্ষার আন্দোলনে নাংচেনের কণ্ঠে কণ্ঠ মিলিয়ে বলতাম-
‘নীলগিরি চাই না, আমাকে আমার শোং নাম হুং ফিরিয়ে দাও
চন্দ্রপাহাড় চাই না, আমাকে তেংপ্লং চূট এনে দাও’
কিন্তু কই! আদিবাসীদের ভূমি বাঁচাতে আমার রক্তে একবিন্দু তাগিদ নেই
আমি কেবল তোমার হৃদয়ের স্বত্ব না পাওয়ার হাহাকারে
হেমন্তের রাতে জ্বলছি দলছুট নক্ষত্রের মতো
পাহাড় কার ছিলো, কার হলো, আত্মকেন্দ্রিক আমার
সেসব দেখার অবকাশ কই!
সুশান্ত, তোমাকে ভালোবেসে আজ কিছু দেখেও দেখি না, শুনেও শুনি না
হৃদয়ের ভূমিতে শুধু শূন্যতার চাষাবাদ করি নিমগ্ন হয়ে
বুকের কার্নিশে সযত্নে রাখি হাজার স্মৃতির টব
দিন যায়, বছর যায়, ফিরে ফিরে আসে এগারো নভেম্বর
শুধু আমাদের ভালোবাসা ফেরে না
বিচ্ছেদের নগ্ন হাতে বেদখল হয়ে আছে
আমাদের না-ফেরা ভালোবাসা
কোন প্রতিবাদী মিছিলে গেলে তাকে ফিরে পাবো
কোন পাহাড়ের চূড়ায় উঠলে তাকে ফিরে পাবো
কোন ভূমিখেকোর হৃদয় খাবলে খেলে তাকে ফিরে পাবো
যদি জানতাম! যদি জানতাম!
আপনার মতামত লিখুন :