ধর্ষকদের পুরুষাঙ্গ অকেজো করে দেয়ার আইনে ইমরানের অনুমোদন

0
109

রাসায়নিক প্রয়োগের মাধ্যমে ধর্ষকদের পুরুষাঙ্গ অকেজো করা এবং যৌন নিপীড়নের মামলা দ্রুত নিষ্পত্তি সংক্রান্ত একটি অধ্যাদেশে মঙ্গলবার অনুমোদন দিয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ও তার মন্ত্রিসভা।

পাকিস্তানের জিও টিভির বুধবারের অনলাইন প্রতিবেদন অনুযায়ী, দেশটির আইন মন্ত্রণালয় ধর্ষণবিরোধী একটি আইনের খসড়া মন্ত্রিসভার বৈঠকে উত্থাপন করলে প্রধানমন্ত্রী ইমরানসহ সবার সম্মতিতে তা পাশ হয়।

অবশ্য রাসায়নিক প্রয়োগে ধর্ষকদের পুরুষাঙ্গ অকেজো (কেমিক্যাল কাস্ট্রেশন) করে দেয়ার এই আইনের খসড়া মন্ত্রিসভায় পাশ হওয়া নিয়ে দেশটির সরকার এখনও আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো ঘোষণা দেয়নি।

পাকিস্তানের ক্ষমতাসীন দল তথা ইমরানের খানের তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) নেতা ফয়জল জাভেদ খান টুইটে লিখেছেন, ধর্ষণ দমনে নতুন আইনের খসড়া অনুমোদনে শিগগিরই তা পার্লামেন্টে পেশ করা হবে।

খসড়া ওই আইনে নারীদের নিরাপত্তায় জরুরিভিত্তিতে কয়েকটি বিশেষ ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ করা হয়েছে। এর মধ্যে পুলিশে আরও বেশি সংখ্যায় নারী নিয়োগ, দ্রুত নিষ্পত্তির জন্য ‘ফাস্ট ট্র্যাক আদালতে’ যৌন নিপীড়নের মামলাগুলোর বিচার ও ধর্ষণের ঘটনার সাক্ষীদের জন্য পর্যাপ্ত নিরাপত্তার ব্যবস্থার কথা বলা হয়েছে।

জিও টেলিভিশন জানাচ্ছে, মন্ত্রিসভার ওই বৈঠকে ইমরান খান বলেছেন, ‘বিষয়টি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এ ব্যাপারে যেন কোনও বিলম্ব না হয়। নাগরিকদের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করার বিষয়টিকে অগ্রাধিকার দিতে হবে।’

মন্ত্রীদের কেউ ধর্ষকদের প্রকাশ্যে ফাঁসির দাবি করলেও পাক প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘রাসায়নিক প্রয়োগে ধর্ষকদের পুরুষাঙ্গ অকেজো করে দেয়ার মাধ্যমে কঠোর পদক্ষেপ শুরু হোক। ধাপে ধাপে তা আরও কঠোর হবে।’

ধর্ষণের শিকার নারীরা ভয়ডরহীন ভাবে মামলা দায়ের করবেন এবং তাদের নিরাপত্তা ও পরিচয়ের সুরক্ষা সরকার দেবে বলেও জানিয়েছেন ইমরান খান। তবে ধর্ষণের আইন নিয়ে পাকিস্তানে বিতর্কও রয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :