হোটেল থেকে উদ্ধার অভিনেত্রীর ঝুলন্ত মরদেহ, খুন না আত্মহত্যা?

0
45

কিছুদিন আগেই ব্যবসায়ী হেমন্ত রাওয়ের সঙ্গে বিয়ের বাগদান সম্পন্ন হয়েছিল তার। দক্ষিণ ভারতীয় ছবির দুনিয়ায় তিনি যথেষ্ট জনপ্রিয়। হাতেও ছিল প্রচুর কাজ। সেই অভিনেত্রীর রহস্যজনক মৃত্যুতে তাই শুরু হয়েছে বিতর্ক।

ভারতীয় গণমাধ্যমগুলো দাবি করছে, প্রেমিক হেমন্তের উপস্থিতিতে মঙ্গলবার চেন্নাইয়ের নাজরেথপেট্টাই এলাকার একটি হোটেলে আত্মহত্যা করেছেন বিখ্যাত অভিনেত্রী ও ভিজে চিত্রা। তার বয়স হয়েছিলো মাত্র ২৮ বছর। হোটেল থেকেই পুলিশ তার মৃতদেহ উদ্ধার করেছে।

চিত্রার মৃত্যুর খবর ছড়াতেই দক্ষিণী ছবির দুনিয়া শোকস্তব্ধ। তবে এটি পরিকল্পিত হত্যা না আত্মহত্যা সেই নিয়ে চলছে আলোচনা। অভিনেত্রীর দেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে পুলিশ।

স্থানীয় প্রশাসন সূত্রে আনন্দবাজারের খবর, সম্ভবত হতাশায় ভুগছিলেন চিত্রা। তারই ফলাফল হয়ত এই আকস্মিক অঘটন।

মৃত্যুর আগের মুহূর্ত পর্যন্ত কী কী করেছেন চিত্রা? এবিপি নিউজ থেকে পাওয়া খবর অনুযায়ী, মঙ্গলবার দুপুর আড়াইটায় চিত্রা হোটেলে ফেরেন। তার আগে ইভিপি ফিল্ম সিটিতে শুটিং করছিলেন তিনি। প্রেমিক হেমন্তও ছিলেন হোটেলে। পুলিশকে হেমন্ত জানিয়েছেন, দুপুরে হোটেল ফিরে স্নানের জন্য বাথরুমে যান চিত্রা। অনেক পরেও কোনো সাড়া না পাওয়ায় প্রথমে তিনি বন্ধ দরজায় ধাক্কা দেন। জানান হোটেল কর্মীদেরও। তারাই ডুপ্লিকেট চাবি দিয়ে দরজা খোলেন। তখনই দেখা যায় গলায় ফাঁস দিয়ে সিলিং থেকে ঝুলছেন চিত্রা।

খবর ছড়াতেই প্রশ্ন উঠেছে, মৃত্যুর নেপথ্য কারণ সুশান্ত সিংহ রাজপুতের মতোই অবসাদ? নাকি শ্রীদেবীর মৃত্যুর পুনরাবৃত্তি? উত্তর খুঁজতে শুরু হয়েছে প্রশাসনিক তদন্ত।

প্রসঙ্গত, চিত্রা তামিল ইন্ডাস্ট্রিতে বেশ কয়েকটি চ্যানেলে উপস্থাপক হিসাবে কাজ করেছিলেন। তার শেষ কাজ ‘পান্ডিয়া স্টোর্স’ ধারাবাহিকে। তার অভিনীত চরিত্র ‘মল্লাই’ তাকে প্রচারের আলোয় নিয়ে এসেছিল। সোশাল মিডিয়াতেও সক্রিয় ছিলেন চিত্রা। ইনস্টাগ্রামে তার দেড় মিলিয়নেরও বেশি ফলোয়ার্স রয়েছে। চিত্রা শেষ ইনস্টাগ্রাম পোস্ট করেন ১৪ ঘন্টা আগে।

আপনার মতামত লিখুন :