অনলাইন কেনাকাটায় সাবধান : প্রতারকচক্র ফাঁদ পেতে আছে

0
46

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের লালবাগ টিম বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে ই-কমার্সভিত্তিক প্রতারকচক্রের ছয় সদস্যকে গ্রেফতার করেছে। রোববার (১৩ ডিসেম্বর) দিবাগত রাত সোয়া ১০টার দিকে রাজধানীর কামরাঙ্গীরচর থানার রসুলপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতাররা হলেন- রকি বিশ্বাস, মো. হেকমত আলী, মো. কচিবুর রহমান, শিমুল মণ্ডল, মো. আনিছুর রহমান শেখ এবং মো. মাজহারুল ইসলাম।

গ্রেফতারের সময় তাদের কাছ থেকে এসএ পরিবহন পার্সেল অ্যান্ড সার্ভিসের ২০২টি মেমো, পণ্য বিক্রয়ের ক্যাশ মেমো ১১৭টি, বিভিন্ন রঙের ব্যবহারের অযোগ্য জুতা ৪৬ জোড়া, চার্জার ১০টি, ল্যাপটপ একটি, বিভিন্ন পণ্যের বুকিংয়ে ফেরৎযোগ্য বক্স ১৫টি, বিভিন্ন মডেলের ব্যবহারের অযোগ্য মোবাইল ফোন ১২টি ও ব্যবহারযোগ্য ১৪টি মোবাইল উদ্ধার করা হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতাররা জানায়, তারা ছদ্মনামে ফেসবুক পেজ ব্যবহার করে দারাজ অনলাইন, দারাজ অনলাইন ৭১, দারাজ অনলাইন শপ, দারাজ এক্সপ্রেস, দারাজ অনলাইন বিডি, ফ্যাশন জোন, গ্যালাক্সি ২৪, অনলাইন মোবাইল গ্যালাক্সি, শপিং সেন্টার নেট, শপিং জোন বিডি, শপিং ডেলস, স্মার্ট শপ বিডি, উইনটার কালেকশন, সোনিয়া ফ্যাশন হাউজ, সু বাজার ডটকম, ফ্যাশন হাউজ ২৪, চায়না ফ্যাশন বিডি ও বিডি ফ্যাশন শপসহ অনলাইন শপিংয়ের বিভিন্ন নামে একাধিক পেজ খোলে।

ওই পেজে অনলাইন শপিংয়ের নামে ভালো মানের মোবাইল ফোন, জুতা, ঘড়ি, থ্রি-পিস, শাড়িসহ প্রয়োজনীয় সামগ্রীর বিজ্ঞাপন দেয়। কোন ব্যক্তি বিজ্ঞাপন দেখে অর্ডার করলে অর্ডার নিশ্চিত হওয়ার পর গ্রেফতাররা নকল, ভাঙাচুরা, নষ্ট ও অপেক্ষাকৃত নিম্নমানের সামগ্রী প্যাকেটিং করে এসএ পরিবহন অ্যান্ড কুরিয়ার সার্ভিসে বুকিং দেয়।

প্রতারকচক্রের প্রথম গ্রুপ রকি বিশ্বাস ও হেকমত আলী ১৬টি অনলাইন শপিং পেজের মাধ্যমে অনলাইনে দামি মোবাইলের ছবি দেখিয়ে অর্ডার কনর্ফাম করেন এবং গ্রাহকদের থেকে বুকিং মানি সংগ্রহ করেন। প্রতারকচক্রের দ্বিতীয় গ্রুপ কচিবুর রহমান ৫টি অনলাইন শপিং পেজের মাধ্যমে অনলাইনে দামি ব্র্যান্ডের জুতা দেখিয়ে অর্ডার কনফার্ম করেন এবং বুকিং নেন।

এরপর মো. আনিছুর রহমান শেখ ও মো. মাজহারুল ইসলাম কনফার্ম করা অর্ডারের বিপরীতে নষ্ট ও ব্যবহার অযোগ্য পণ্য প্যাকেজিং করে কুরিয়ারের মাধ্যমে ডেলিভারি দেয়। প্রতারক চক্রের তৃতীয় গ্রুপ শিমুল মণ্ডল ও তার ভাই পলাতক অভিযুক্ত আশিকুর রহমান ওরফে সুজন তিনটি অনলাইন শপিং পেজের মাধ্যমে দামি ব্র্যান্ডের জামা-কাপড়ের বিজ্ঞাপন দেয়।

সুজন নড়াইল বসে অর্ডার কনফার্ম হলে ফোনে তার ভাই শিমুল মণ্ডলকে অবহিত করেন। তিনি নিজেও অর্ডার পেলে তখন গাউছিয়া ও নিউমার্কেটর সামনে ফুটপাত থেকে অর্ডার অনুযায়ী অপেক্ষাকৃত নিম্নমানের জামা-কাপড় ক্রয় করে এস এ পরিবহন অ্যান্ড কুরিয়ার সার্ভিসে বুকিং দিয়ে অভিনব পদ্ধতিতে প্রতারণা করে থাকেন।

গ্রেফতারদের বিরুদ্ধে মিরপুর মডেল থানায় একটি মামলা রুজু করা হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :