বিজয়ের দিনে শহীদদের স্মরণ

0
67

মহান বিজয় দিবস আজ। এ উপলক্ষে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের স্মরণে সাভারের জাতীয় স্মৃতিসৌধে ভিড় করেছে সর্বস্তরের জনতা। জাতি আজ বিনম্র শ্রদ্ধায় স্মরণ করছে একাত্তরের বীর যোদ্ধাদের।

বুধবার (১৬ ডিসেম্বর) ভোর সাড়ে ৬টার পর রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে ফুল দিয়ে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হয়।

রাষ্ট্রপতির পক্ষে তার সামরিক সচিব মেজর জেনারেল এস এম শামিম উজ জামান ও প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে তার সামরিক সচিব মেজর জেনারেল নকিব আহমদ চৌধুরী শহীদ বেদিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

এ সময় বিউগলে বেজে ওঠে করুণ সুর। শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে গার্ড অব অনার প্রদান করে সশস্ত্র বাহিনীর একটি চৌকস দল।

এরপর জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর পক্ষ থেকে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হয়। মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হকের নেতৃত্বে মন্ত্রিসভার পক্ষ থেকে স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

এরপর সর্বসাধারণের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হয় স্মৃতিসৌধ। তখন আসতে শুরু করেন বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

আওয়ামী লীগের পক্ষে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, বিএনপির পক্ষে দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

করোনাভাইরাসের প্রকোপ উপেক্ষা করে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ সকাল থেকেই দলে দলে একাত্তরের শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে স্মৃতিসৌধের বেদিতে ফুল দেয়া শুরু করে। পাশাপাশি শহীদদের প্রতি জানান রাজনৈতিক, শিল্পী-বুদ্ধিজীবী, মুক্তিযোদ্ধা, পেশাজীবী, শ্রমিক, শিক্ষার্থীরা। ফুলে ফুলে ভরে ওঠে স্মৃতিসৌধের বেদি

শহীদদের সম্মান জানাতে অনেকে পরিবার নিয়ে এসেছেন। কেউ এসেছেন বন্ধু-বান্ধবদের সঙ্গে নিয়ে। বিজয়ের এই দিনে অনেকেই তাদের স্মৃতি ক্যামেরার ফ্রেমবন্দী করতে শুরু করেছেন। সেলফি, ছবি তুলতে অনেকেই ব্যস্ত সময় পার করছেন। স্মৃতিসৌধের বেদিতে সম্মান জানিয়ে ছবি তুলছেন দলবদ্ধ হয়ে।

অনেকে শিশু সন্তান নিয়ে এসেছেন। তাদেরই একজন মোর্শেদুজ্জামান। পেশায় ফ্রিল্যান্সার। আশুলিয়ার কাঠগড়া থেকে স্মৃতিসৌধে এসেছেন। সঙ্গে এনেছেন দুই শিশু কন্যাকে। তিনি জানালেন, প্রতিবছরই এই দিনে মেয়েদের নিয়ে স্মৃতিসৌধে আসেন। তিনি বলেন, ‘ওদেরকে দেশের ইতিহাস সম্পর্কেতো জানাতে হবে। ওদের পরবর্তী প্রজন্মকে আবার নিজেরা জানাতে পারবে। বাবা হিসেবে নিজের দায়িত্ব পালন করছি।’

এদিকে বিজয় দিবস উদযাপনে জাতীয় স্মৃতিসৌধ এলাকায় নেয়া হয়েছে তিন স্তরের নিরাপত্তাব্যবস্থা। স্মৃতিসৌধ প্রাঙ্গণে মোতায়েন করা হয়েছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর শতাধিক সদস্য।

আপনার মতামত লিখুন :