যৌতুক প্রথার বিরুদ্ধে স্বামী-স্ত্রীর অভিনব প্রতিবাদ

0
124

মোখলেছুর রহমান সাগর পেশায় বেসরকারি চাকুরিজীবী। সম্প্রতি তেজগাঁও কলেজ থেকে পড়াশোনা শেষ করেছেন। ২০১৩ সাল থেকে বিভিন্ন ধরনের সামাজিক অনিয়ম, নারী-শিশু নির্যাতন ও ধর্ষণের প্রতিবাদে তিনি একাই প্ল্যাকার্ড-ফেস্টুন নিয়ে রাস্তায় দাঁড়িয়েছেন। দাবি জানিয়েছেন অনিয়ম, নির্যাতন ও ধর্ষণ বন্ধের।

শুক্রবার (১৮ ডিসেম্বর) রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সাগর তার স্ত্রী-সন্তানসহ যৌতুকের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে প্রতিবাদ জানিয়েছেন। একইসঙ্গে তিনি যৌতুকের বিরুদ্ধে তার অবস্থানের বিষয়টি উল্লেখ করে লিফলেট বিতরণ করেছে।

প্রেসক্লাবের সামনে গিয়ে দেখা যায়, সাগর তার স্ত্রী-সন্তানসহ প্ল্যাকার্ড নিয়ে দাঁড়িয়ে আছেন। এসময় তাদের হাতে জাতীয় পতাকা আর ‘যৌতুক একটি সামাজিক ব্যাধি, ‘যৌতুক চাওয়া মানেই ভিক্ষা চাওয়া’, ‘যৌতুককে না বলুন’ লেখা সম্বলিত প্ল্যাকার্ড ছিল। যখনই কেউ এ বিষয়ে জানতে চাচ্ছেন তখন সাগর তার অবস্থানের বিষয়ে লেখা লিফলেট তুলে দিচ্ছেন।

husband-wife-1.jpg

কথা হয় সাগরের সঙ্গে। তিনি জাগোনিউজকে বলেন, যৌতুক একটি অভিশাপ। আমরা সবাই এ বিষয়ে একরকম নিরব! উচ্চবিত্ত, মধ্যবিত্ত ও নিম্নবিত্ত সব পরিবারে যৌতুক দেয়া-নেয়া হচ্ছে। এতে করে অনেক সময় বিয়ে ভেঙে যাচ্ছে। আবার বিয়ে হলেও বিচ্ছেদের ঘটনা ঘটছে। আর নারীরা যৌতুকের কারণে বিভিন্নভাবে নির্যাতন, হয়রানির শিকার হচ্ছে। আমার ক্ষুদ্র প্রয়াস থেকে স্ত্রী-সন্তানসহ আজ এখানে দাঁড়িয়েছি। যাতে করে সবাই সচেতন হয়, সোচ্চার হয়। যৌতুকের বিরুদ্ধে আমাদের এ অবস্থান সবসময় অব্যাহত থাকবে।

সাগরের স্ত্রী তাহমিনা আক্তার। নরসিংদী সরকারি মহিলা কলেজে পড়াশোনা করছেন৷ তিনি জাগোনিউজকে বলেন, ‘আমার স্বামীর এমন প্রতিবাদী কর্মসূচি আমাকেও অনুপ্রাণিত করে। তার সঙ্গে সব কর্মসূচিতে থাকার সুযোগ হয় না। তবে যৌতুকবিরোধী আজকের এ অবস্থান কর্মসূচিতে অংশ নিতে পেরে খুব ভালো অনুভব করছি। আমরা বলতে চাই- যৌতুক বন্ধে সবাইকে সচেতন হতে হবে। তা না হলে সমাজের নারীরা যৌতুকের বিরূপ প্রভাব থেকে রেহাই পাবে না।’

এসময় তাদের একমাত্র সন্তান হৃদিতা মেহেরুন আলপনাও সঙ্গে ছিলেন।

আপনার মতামত লিখুন :