অপপ্রচার বন্ধ করুন: শাহাদাৎ হোসেন ভূঁইয়া

0
91
সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন “সমাজগড়ি” সভাপতি শাহাদাৎ হোসেন ভূঁইয়াকে নিয়ে বিভিন্ন পত্রিকায় নেতিবাচক সংবাদ প্রকাশে হলে ক্ষোভ প্রকাশ করে বিবৃতি দিয়েছেন ভুক্তভোগী কলম সৈনিক ও লেখক শাহাদাৎ হোসেন ভূঁইয়া।
তিনি এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলেন, ২৫ ডিসেম্বর ২০২০ শুক্রবার দু’একটি স্থানীয় পত্রিকায় একই বিষয়বস্তু সম্বলিত ‘এসপির নাম বাদ’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ করা হয়। যা অত্যন্ত দুঃখজনক। আমি শাহাদাৎ হোসেন ভূঁইয়া, স্থায়ী ঠিকানা: গ্রীন সিটি, ৬৬নং ওয়ার্ড, ঢাকা দক্ষিন সিটি কর্পোরেশন, জিলা ঢাকা। বর্তমান কর্মস্থল ৫৩/৪ নবাব সলিমুল্লাহ সড়ক (২য় তলা) চাষাঢ়া, নারায়ণগঞ্জ।
তিনি আরো বলেন, আমি পেশাগতভাবে ১৪ বছর যাবৎ জাতীয় প্রথম সারি ও নারায়ণগঞ্জ থেকে প্রকাশিত স্থানীয় বেশ কয়েকটি সংবাদপত্রে সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করে এসেছি। বিগত ৩ বছর যাবৎ বাংলা সংবাদ নিউজ পোর্টালের প্রকাশক ও সম্পাদক হিসেবে বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ প্রকাশ করে আসছি। সাংবাদিকতার পাশাপাশি রাজধানী ও নারায়ণগঞ্জের সাংবাদিক সংগঠন, সাহিত্য সংগঠন, সামাজিক সংগঠনসহ বর্তমান সরকার দলীয় উন্নয়ন কর্মকান্ডে সম্পৃক্ত রয়েছি। আমাকে নিয়ে ও আমাদের সমাজিক সংগঠন সমাজ গড়ি আয়োজিত মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে ‘আলোচনা ও মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা’ নিয়ে কয়েকটি অবান্তর প্রশ্ন তোলা হয়। এছাড়াও অসত্য, কাল্পনিক, ভিত্তিহীন, বানোয়াট ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত গল্প প্রকাশ করে আমাকে হেয় প্রতিপন্ন ও সুনাম নষ্ট করার অপচেষ্টা চালানো হয়েছে। আমি ও সমাজ গড়ির পক্ষ থেকে তাদের এ ধরনের গর্হিত কাজের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।
আমরা বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে নারায়ণগঞ্জ জেলার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জায়েদুল আলম মহোদয়কে প্রধান অতিথি হিসেবে আমন্ত্রন জানাই। সংগঠনের প্যাডে একটি চিঠি ডিএসবি শাখায় দেয়া হয়। অনুষ্ঠানের সময় সংক্ষিপ্ত হয়ে আসলে আমরা দাওয়াতপত্র ছাপাই। গত ২৩ ডিসেম্বর ডিএসবির প্রতিনিধি সাইদুর রহমান আমাদের চাষাঢ়ার কার্যালয়ে আসেন। তিনি সংগঠনের বিভিন্ন তথ্য জানতে চান। আমরা তাকে পরিস্কারভাবে সঠিক তথ্য প্রদান করি। পরদিন আমরা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জায়েদুল আলম মহোদয়ের কার্যালয়ে সাক্ষাৎ করলে কয়েকটি প্রতিবন্ধকতা ও ব্যস্ততা জানিয়ে প্রধান অতিথি পরির্বতন করে নতুন দাওয়াতপত্র প্রকাশ করতে বলেন। সেই মতে আমরা প্রধান বক্তা ডেপুটি কমান্ডার এড. নুরুল ইসলাম মহোদয়কে প্রধান অতিথি করে ২য় বার দাওয়াতপত্র ছাপাই।
বিগত কয়েক বছর আগে আমরা সিদ্ধিরগঞ্জ থানার সাইনবোর্ড এলাকায় বেলাল হোসাইন ভূঁইয়ার অবৈধ পন্থায় হাসপাতাল পরিচালনার তথ্য পেয়ে ফ্যামিলি ল্যাব হাসপাতালে সংবাদ সংগ্রহের অনুসন্ধানে গেলে চতুর ও বিভিন্ন অপকর্মের হোতা বেলাল হোসাইন আলোচনার নামে আমাদের বসিয়ে তৎকালীন সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি সরাফত উল্ল্যাকে মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী করে। পরবর্তীতে অবৈধ হাসপাতাল পরিচালনা ও স্বাস্থ্যসেবা নিয়ে ব্যাপক প্রতারণার অভিযোগ পেয়ে র‌্যাব-১১’র মেজর নাজমুস সাকিবের নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে প্রতিষ্ঠানটির দুই ভুয়া ডাক্তারকে আটক করা হয়। তাৎক্ষনিক ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে তাদেরকে ১ বছর করে কারাদন্ড প্রদান করা হয়। এছাড়াও অবৈধ প্রতিষ্ঠানটি সিলগালা করে বেলাল হোসেনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করে র‌্যাব। অপর একটি মামলায় শ্রম আইনে বেলাল হোসাইনকে ৬ মাসের কারাদন্ড দিয়ে আটক করা হয়। বর্তমানে সেই প্রতারক বেলাল হোসাইন ওই হাসপাতালের মালিকানা বিক্রির নামে বিভিন্ন ব্যক্তির কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেয়ার কয়েকটি মামলায় পলাতক রয়েছে বলে জানা গেছে।
তৎকালিন সময়ে আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা চাঁদাবাজির মামলা ও অন্যায়ভাবে গ্রেফতারের বিপক্ষে এবং কয়েকটি ভূমি দখলের সহযোগীতা করার অভিযোগের প্রেক্ষিতে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি সরাফত উল্ল্যাহ এবং এসআই মাজহারের বিষয়ে তদন্ত করে দোষী প্রমান পান তৎকালিন পুলিশ সুপার। দোষী সাব্যস্ত হওয়ায় তাদেরকে ক্লোজড করে পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করেন।
আমরা বিভিন্ন সংগঠনের সাথে যুক্ত থেকে দেশ, সমাজ ও জনকল্যাণে বিভিন্ন উন্নয়নমুলক কাজ করে আসছি। কিছু কুচক্রি মহল আমাদের কর্মকান্ডের সফলতা দেখে ইশর্^ান্বিত হয়ে একটি আলোকচিত্রকে জনগনের সামনে এনে আমাদের সফল কর্মকান্ডের গতিরোধ করতে চায়। এছাড়াও তারা আমাদের সমাজে ছোট করতে চায়। আমাদের বিরুদ্ধে অপপ্রচারকারী কুচক্রী মহল ও অসাধু ব্যক্তিদের কাছে জানতে চাই। এ ঘটনা ছাড়া অন্য কোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের কাছে চাঁদা দাবী করার কোন প্রমান থাকলে জনসম্মুখে তুলে ধরুন। আমার সহকর্মীদের কাছে প্রত্যাশা, তারা যেন বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশন করুন। সাংবাদিক সমাজকে দেশের জনগনের সামনে কলুষিত করবেন না। এছাড়াও এ ধরনের মিথ্যা ও ভিত্তিহীন সংবাদ প্রকাশ করে কোন সমাজকর্মীকে তার পথচলার গতিরোধ করবেন না। সম্পাদক ও প্রকাশনগণকে অত্যন্ত বিনয়ের সাথে বলতে চাই সংবাদকর্মী প্রেরিত সংবাদটি ভালোভাবে যাচাই বাছাই করে প্রকাশ করুন। আপনার পত্রিকার সুনাম ও ভাবমুর্ত্তি নষ্ট করবেন না। পাঠক ও দর্শক বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ দেখতে ও পড়তে চায়।
আপনার মতামত লিখুন :