নারায়ণগঞ্জের ই-কমার্সের নারী উদ্যোক্তাদের আয়োজনে অনুষ্ঠিত হয় “জামদানী ইভেন্ট”

0
271
জামদানির প্রচার বাড়াতে নারায়ণগঞ্জের ই-কমার্সের নারী উদ্যোক্তাদের আয়োজনে অনুষ্ঠিত হয় এই“জামদানী ইভেন্ট নারায়ণগঞ্জ”। এই ইভেন্ট জামদানীর প্রচার বাড়াতে বিশেষ ভূমিকা রাখে। জামদানী ইভেন্টে প্রধান অতিথি নাহিদা বারিক, উপজেলা নির্বাহী অফিসার এবং বিশেষ অতিথি রেজা মোহাম্মদ গোলাম মাসুম, প্রধান সহকারী কমিশনার (ভূমি) সহ শতাধিক উদ্যোক্তা ও দর্শক অংশ নেয়। চৌদ্দ জন নারী উদ্যোক্তা নিজেদের অর্থায়নে জামদানী ইভেন্টের আয়োজন করেন।
তারা হলেন জান্নাত সুলতানা, তীর্থ খায়ের সিথী, রুনা আহমাদ, মাহমুদা রানী, উম্মে সালমা সুচনা, ফিওনা দাস কনিকা, মমতাজ বেগম, রহিমা নূর, ফারজানা হোসাইন ইভা, নুসরাত ফারজানা, সাবিনা ইয়াসমিন, জান্নাতুল ফেরদৌস ও সুমাইয়া শিমু।
ইভেন্টের আহ্বায়ক জান্নাত সুলতানা মূল আকর্ষণ হিসেবে গায়ে হলুদের বউ, বিয়ের বউ, ধর্মীয় বউ, বউ ভাতের বউ সহ নানা সাজের জামদানী শাড়ী পরা বউকে সাজিয়ে  রাখে।
যা ইভেন্টের গুরুত্ব ও ঐতিহ্য বাড়িয়ে দেয় বহুগুনে। এ ছাড়াও আরও সাত জন নারী উদ্যোক্তার পণ্য প্রদর্শনী ও বিক্রি হয় এই ইভেন্টে।
ই-কমার্স এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ই-ক্যাব) এর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি রাজিব আহমেদ ফেসবুক লাইভে “জামদানি ইভেন্ট নারায়ণগঞ্জ” শুভ কামনা জানিয়ে বলেন, জামদানীর জন্মস্থান নারায়ণগঞ্জ।
এটি নারায়ণগঞ্জ জেলার ঐতিহ্যবাহী পণ্য।  এ জেলা থেকে সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ে জামদানী। তিনি আরও বলেন, আমি আশাকরি নারায়ণগঞ্জের উদ্যোক্তারা এমন ইভেন্ট প্রতিবছর করবে এবং প্রতি ৩-৪ মাস পর পর ছোট করেও হলেও ইভেন্ট করবে।
ইভেন্টে উপস্থিত জামদানী রানি খ্যাত কাকলী রাসেল তালুকদার বলেন, ঢাকাইয়া জামদানির জন্মস্থান নারায়ণগঞ্জ। নারায়ণগঞ্জের এই জামদানীর খ্যাতি দীর্ঘদিনের। এখানে প্রতিবছর অন্তত তিন লাখ জামদানী শাড়ী বুনন করেন তাতিরা। এই সংখ্যাটা আমাদেরকে ত্রিশ লাখে নিয়ে যেতে হবে। দীর্ঘদিন প্রচারের অভাবে এই জামদানীর পন্য বিক্রি ও ব্যবহারে ভাটা পড়েছিল।
গতবছর ২০২০ সালে ইন্টারনেটে জামদানি ওয়েভ তোলার পর থেকে সুদিন ফিরতে শুরু করেছে জামদানীর। যা এখন অসংখ্য নারী উদ্যোক্তার উদ্যোগে ই কমার্সের জনপ্রিয় গ্রুপ ওমেন্স এন্ড ই-কমার্স ফোরামের কল্যাণে ছড়িয়ে পড়েছে দেশ থেকে বিদেশেও। এটাকে আরো বেশি এগিয়ে নিতে হবে এই রকম আয়োজনের মাধ্যমে।
এ ছাড়াও ইভেন্টে উপস্থিত দেশি পন্যের সিলেবাসের রচয়িতা নিগার ফাতেমা তার বক্তব্যে জামদানী নিয়ে অনেক উচ্ছাস ও আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
আপনার মতামত লিখুন :