র‌্যাবের সাথে ভুলবুঝাবুঝি কে পুঁজি করে সাংবাদিক সোহেল রানার বিরুদ্ধে অপপ্রচার

0
388

পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে র‌্যাব-১০ এর সাথে ভুলবুঝাবুঝির কারণে সাংবাদিক সোহেল রানাকে ধরে নিয়ে যাওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে একটি কুচক্রী মহল মিথ্যা অপপ্রচারে লিপ্ত হয়েছে। সোহেল রানাকে সামাজিক ভাবে মান সম্মান ক্ষুন্ন করতে ওই কুচক্রী মহল বিভিন্ন অনলাইন নিউজ পোর্টালে মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে শেয়ার করছে। তার দরুন পেশাদার সাংবাদিক মহলে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

জানা গেছে, গত ১০ জুলাই র‌্যাব-১০ এর একটি দল সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজি টিসি রোড এলাকায় অভিযান চালিয়ে মাদক ব্যবসায়ী আলমগীরসহ ৩ জনকে গ্রেপ্তার করে। এই খবর পেয়ে সাংবাদিক সোহেল রানা অভিযানস্থলে গিয়ে আটকদের ছবি তুলে। এসময় র‌্যাবের সাথে সোহেলের ভুলবুঝাবুঝি হয়। তখন র‌্যাব সোহেল রানাকে তাদের কার্যালয়ে নিয়ে যায়। খবর পেয়ে স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মীরা র‌্যাব কার্যালয়ে গিয়ে সোহেল রানাকে সম্মানের সাথে ছাড়িয়ে নিয়ে আসেন।

এই বিষয়টিকে পুঁজি করে একটি মহল সোহেল রানার বিরুদ্ধে মিথ্যা অপপ্রচারে লিপ্ত হয়। তাকে মাদক ব্যবসায়ী ও মানহানিকর উক্তি করে বিভিন্ন অনলাইন পোর্টালে মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে শেয়ার দিয়ে সোহেল রানাকে সামাজিক ভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার ষড়যন্ত্র শুরু করেছে। যারা এসব করছে তাদের চিহ্নিত করা হচ্ছে। জানা গেছে, পেশাদারিত্বের বেলায় সোহেল রানা সর্বদায় সোচ্চার।

স্থানীয় প্রশাসন থেকে শুরু করে সর্বমহলে তার পেশাদারিত্বের সুনাম রয়েছে। যে কোন ঘটনা-দুর্ঘটানাস্থলে তাকেই সর্বপ্রথম দেখা যায়। পেশাদারিত্বের ক্ষেত্রে তার কোন অবহেলা নেই। অথচ অপেশাদারিরাই সাধারণ একটি বিষয়কে কেন্দ্র করে সোহেল রানাকে হেয়করার পাঁয়তারা করছে। এতে বিভিন্ন মহল নিন্দা প্রকাশ করেছেন। এধরণের অপপ্রচারে যারা লিপ্ত হয়ে নিজেদেরকেই সমালোচনায় পতিত করছে ওই মহলটি।

বাস্তবিক অর্থে পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে অনেক পেশাদার সাংবাদিকরাও প্রশাসনের হাতে হেনস্থা হচ্ছে। তার অর্থ এই নয় যে, তিনি খারাপ। ঠিক তেমনি একটি ঘটনা ঘটেছে সোহেল রানার ক্ষেত্রে। তাই এই বিষয় নিয়ে গোলাপানিতে মাছ শিকার করার ষড়যন্ত্র করা সাংবাদিক পেশার নৈতিকতা নষ্ট করার শামিল বলে মনে করছেন সচেতন মহল।

এ ব্যাপারে সাংবাদিক সোহেল রানা বলেন, কুচক্রী মহলকে সবাই চেনে। অপপ্রচারকারীদের বিরুদ্ধে সকলকে সোচ্চার হতে হবে। ওদের কারণে সমাজে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হয়।তাই পুলিশ প্রশাসন তৎপর হলে অপপ্রচারকারীরা আর সাহস পাবে না।

আপনার মতামত লিখুন :