করোনায় মৃত বাবাকে দেখতে এল না সন্তানরা, দাফনে স্বেচ্ছাসেবকরা

0
69

চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোল উপজেলার শ্রীরামপুর গ্রামে করোনা আক্রান্ত হয়ে আব্দুল ওহাব (৬৫) নামের এক ব্যক্তি শুক্রবার (৩০ জুলাই) সকালে মারা যান। তবে খবর পেয়েও মরদেহ দেখতে আসেনি তার নিজ ছেলে ও মেয়ে। পরে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন নাচোল মানবিক উন্নয়ন সোসাইটি তার দাফন কাজ সম্পন্ন করে। এ ঘটনাটি এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছে।

স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ৭-৮ দিন আগে আব্দুল হক ওহাব করোনা আক্রান্ত হন। আক্রান্তের কথা শুনে একমাত্র ছেলে ভদু তার বাবাকে বাড়ি থেকে বের করে দেন। পরে কোথাও জায়গা না আব্দুল্লাহ ওহাব পাশেই তার বোন নাসিমার কুঁড়েঘরে অবস্থান নেন। সেখানে শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টায় তিনি মৃত্যুবরণ করেন। তবে তার ছেলে ভদু ও মেয়ে শিউলি মৃত্যুর কথা শুনেও দেখতে আসেননি।

ওয়াবের মৃত্যু খবর পেয়ে নাচোল মানবিক উন্নয়ন সোসাইটির সভাপতি শাকিল রেজা উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনকে বিষয়টি অবহিত করেন। পরে নাচোল মানবিক উন্নয়ন সোসাইটি সদস্যরা সুরক্ষা পোশাক পরে শুক্রবার (৩০ জুলাই) সন্ধ্যায় উপজেলার মোমিনপাড়া গোরস্থানে আব্দুল ওহাবের দাফন সম্পন্ন করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন নাচোল বাজার কেন্দ্রীয় মসজিদের ইমাম মাওলানা এনামুল হক, ইমাম সোহেল রানা, নাচোল মানবিক উন্নয়ন সোসাইটি সভাপতি শাকিল রেজা। জানাজায় ৭০-৮০ জন লোক অংশগ্রহণ করেন।

নাচোল মানবিক উন্নয়ন সোসাইটির সভাপতি শাকিল রেজা বলেন, সংবাদ পাওয়া মাত্রই আমরা মরদেহের কাছে ছুটে যাই। তাৎক্ষণিক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নাচোল থানার ওসিকে বিষয়টি অবহিত করি। পরে পুলিশের উপস্থিতিতে মোমিনপাড়া গোরস্থানে আব্দুল ওয়াবকে দাফন করা হয়।

এ বিষয়ে মৃত আব্দুল্লাহ ওহাবের ছেলে ভদু বলেন, ‘আমাদের মধ্যে করোনার ভয় কাজ করছিল। তাই বিষয়টি প্রথমে অতটা গুরুত্ব দেইনি। এখন বুঝতে পারছি আমরা ভুল করেছি।’

আপনার মতামত লিখুন :