মৈত্রী ব্রিগেড এর ক্যাম্পেন সভা ও মাস্ক বিতরণ অনুষ্ঠিত

0
92

করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় জনগণের মধ্যে সচেতনতা তৈরি ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলায় উদ্বুদ্ধ করতে ” মৈত্রী ব্রিগেড ” নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে ০২ আগষ্ট ( সোমবার ) সকাল ১১টায় ক্যাম্পেন সভা ও মাস্ক বিতরণ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মৈত্রী ব্রিগেডের আহবায়ক জেসমিন আক্তারের সভাপতিত্বে ও রাফি উদ্দিন আহমেদ প্রাচীরের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির জেলা সাধারণ সম্পাদক কমরেড হিমাংশু সাহা, সম্পাদক মণ্ডলীর সদস্য কমরেড গোলাম মোস্তফা সাচ্, বাংলাদেশ যুব মৈত্রীর জেলা আহবায়ক আবুল হোসেন পাঠান, মাসুম শেখ, ইকবাল বাবু, বাংলাদেশ ছাত্র মৈত্রীর জেলা সাংগঠনিক সম্পাদক মনিরুল ইসলাম, রেশমা আক্তার নদী, মেহেদী হাসান শুভ প্রমূখ।

স্বাস্থ্য বিধির বিকল্প নাই- করোনা মুক্ত বিশ্ব চাই শ্লোগানকে ধারণ অনুষ্ঠিত সভায় বক্তারা বলেন, বর্তমান জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক পরিস্থিতিতে কভিড – ১৯ প্রাদুর্ভাব প্রতিরোধে সামাজিক দূরত্ব মানা, মাস্ক পরিধান করার উপর গুরুত্বারোপের বিকল্প নেই। অথচ এমন একটি পরিস্থিতিতে সরকার কর্তৃক দফায় দফায় লকডাউন – সার্ট ডাউনের প্রঞ্জাপন জারি করা হলেও তার সংশ্লিষ্ট জনদূর্ভোগ মুক্ত কার্যকরী পদক্ষেপ পরিলক্ষিত হচ্ছে না। আমরা প্রত্যক্ষ করলাম সম্প্রতি জুলাই মাসের ১৩ তারিখ একটি প্রঞ্জাপন জারি করে তা সংশোধন করে ১৯ জুলাই আরেকটি এবং ২৮ জুলাই আরো একটি প্রঞ্জাপন জারি করে ৫ আগষ্ট পর্যন্ত লকডাউন বহাল থাকলেও অর্থনীতির চাকা সচল রাখার নামে মূলত শুধুমাত্র মুনাফালোভী বিজিএমইএ, বিকেএমইএ সংশ্লিষ্টদের খুশি করতে ১লা আগষ্ট থেকে রপ্তানিমুখী শিল্প কারখানা চালু করার ঘোষণা দেয়া হয়।

এক দিকে বলা হয় কর্মস্থলে উপস্থিত শ্রমিক – কর্মচারীদের দিয়ে কারখানা চলবে ; অন্যদিকে শ্রমিকদের গ্রাম থেকে চলে আসার জন্য অর্থপিপাষু মালিক প্রতিনিধির ফোন। এক দিকে দূরপাল্লা সহ সকল গণপরিবহন বন্ধ, অপরদিকে কাজে যোগদান করতে নাপারলে চাকরি হারাবে। এই রকম একটি পরিস্থিতিতে চাকরি রক্ষার্থে গতবছরের ন্যায় অনিচ্ছাকৃত স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষা করেই নির্ধারিত ভাড়ার বহুগুণ টাকা খরচ করে শ্রমিকবন্ধুরা কাজে যোগদান করে, অথচ যেই মালিকদের স্বার্থে স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষিত হলো তাদেরকে এখনো আইনের আওতায় এনে শাস্তি নিশ্চিত করা হয়নি, ব্রিগেড এর সভা থেকে এহেন অপরিপক্কতার জন্য বক্তারা তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন। পাশাপাশি করোনা সংক্রমণরোধে যতোদ্রুত সম্ভব সর্বজনকে ভ্যাকসিনের আওতায় আনার প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করার জন্য সরকারের প্রতি জোরদাবি জানান।

সভায় সভাপতির বক্তব্যে জেসমিন আক্তার বলেন, মৈত্রী ব্রিগেড সহ জেলায় অন্যান্য যে সকল সমাজসেবী সংগঠন রয়েছে, তা জেলা প্রশাসন চাইলে স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে কাজে লাগাতে পারেন। করোনা মহামারীর বিবেচনায় মৈত্রী ব্রিগেড জেলা প্রশাসনকে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

আপনার মতামত লিখুন :