নারায়ণগঞ্জে এফবিসিসিআইয়ের নতুন পর্ষদকে সংবর্ধনা

0
46

ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (এফবিসিসিআই) নবনির্বাচিত সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন বলেছেন, আমাকে বলা হচ্ছে ইন্ডাস্ট্রি করার জন্য। জায়গা দেন অবশ্যই ইন্ডাস্ট্রি করব। আমরা যেখানে সুযোগ-সুবিধা পাব সেখানেই ইন্ডাস্ট্রি করব। আমাকে বলা হয়েছে নারায়ণগঞ্জে বেঙ্গল ব্যাংকের শাখা খুলব। আমাকে জায়গা দেন বেঙ্গল ব্যাংকের শাখা খুলব। শনিবার রাতে এফবিসিসিআইয়ের নবনির্বাচিত পর্ষদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

দেশের নিট পোশাক ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন বিকেএমইএ ও নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির উদ্যোগে নারায়ণগঞ্জ ক্লাবে এ সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

এফবিসিসিআই সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন বলেন, বাংলাদেশের ২৫ পার্সেন্ট কর্মসংস্থানের প্রাইভেট সেক্টর। তাহলে আমাদের সুবিধা অনুযায়ী নীতি বানাতে হবে। প্রধানমন্ত্রী অনেক দিকনির্দেশনা দিয়েছেন। করোনার কারণে অনেক ইন্ডাস্ট্রি বন্ধ হয়ে গেছে। প্রধানমন্ত্রী যে টাকা প্রণোদনা দিয়েছেন সে টাকা এখনো দেওয়া হয়নি। সরকার যেসব চাচ্ছেন আমরা সেভাবেই চাচ্ছি। কিন্তু মাঝখানে আমলাতান্ত্রিক প্রতিবন্ধকতা নিয়ে কাজ করতে হবে।

এ সময় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের সভাপতি বিকেএমইএর সভাপতি ও নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য সেলিম ওসমান বলেন, ১৯৯৬ সালে প্রধানমন্ত্রী আমাকে ডাকলেন। আমাদের দিকনির্দেশনা দেওয়া হলো তোমরা বিকেএমইএ সৃষ্টি কর। তার সমস্ত কর্মকাণ্ড নারায়ণগঞ্জেই থাকতে হবে। আমরা একটা জায়গা প্রধানমন্ত্রীর কাছে চেয়েছিলাম। শুধু আমি একা না, নারায়ণগঞ্জের সব স্তরের মানুষ একটা আবেদন করেছিলাম। প্রথম যেদিন সংসদে গিয়েছিলাম সেদিনই আবেদনটা করেছিলাম। বিশাল জায়গা পড়ে রয়েছে যেটাকে শান্তিরচর বলা হয়। এটা নিটওয়্যারের জন্য হলেও আমার নারায়ণগঞ্জে মানুষ যেন স্বাবলম্বী হতে পারে।

তিনি আরও বলেন, আমি ফেডারেশনের (এফবিসিসিআই) সহযোগিতা চেয়েছি সঙ্গে বিজেএমইএ থাকলেও আমাদের কোনো আপত্তি থাকবে না। সেখানে এত বড় শিল্পনগরী হবে যা বাংলাদেশের কোথাও নেই। দুই নদীর মোহনায় এ জায়গাটি। প্রধানমন্ত্রী যখন পেপারটি দেখেছেন দেখার ২১ দিনের মাথায় একনেকে পাস করিয়েছেন। কিন্তু জানি না কেন এটা এগোতে পারছে না। তাই আজকে আমার দাবি ফেডারেশনে সভাপতি পাওয়া গেলে নারায়ণগঞ্জে কোনো অপরাজনীতি থাকবে না। কোনো হিংসা থাকবে না।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- বিকেএমইএর প্রথম সভাপতি এমএ হাতেম, এফবিসিসিআই সহ-সভাপতি মোস্তফা আজাদ চৌধুরী বাবু, আমিন হেলালী, হাবিবউল্লাহ ডন, নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের সভাপতি খালেদ হায়দার কাজল, বিএইচএ সভাপতি প্রবীর কুমার সাহা, বিওয়াইএমএ সভাপতি লিটন সাহা, বিএইচএ নাজমুল আলম সজল, বিকেওএ সভাপতি মাহবুবুর রহমান স্বপন, বিকেডিওএ সভাপতি ওয়াহিদুজ্জামান, বিপিএলসিএমওএ সুলতান উদ্দিন নান্নু, বিটিডি অ্যান্ড সিএমএ সভাপতি লিটন সাহাসহ বিভিন্ন ব্যবসায়িক সংগঠনের প্রায় ৬ শতাধিক সদস্য।

আপনার মতামত লিখুন :