হেনস্তা-হুমকির মাধ্যমে অর্থ হাতিয়ে নিতেন তারা

0
49

রাজশাহীতে প্রাইভেট পড়ানোর জন্য ডেকে নিয়ে এক ব্যক্তি থেকে অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে দুই নারীসহ তিনজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (৫ অক্টোবর) দুপুরে আদালতের মাধ্যমে তাদের কারাগারে পাঠানো হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের (আরএমপি) গোয়েন্দা শাখার উপ-পুলিশ কমিশনার মো. আরেফিন জুয়েল।

গ্রেফতাররা হলেন- নগরীর বোয়ালিয়ার সুলতানাবাদ এলাকার মো. আমিনুর রহমান বাবুর ছেলে মো. আতিকুর রহমান বাপ্পি (৩২), মোছা. পবা উপজেলার চৌবাড়ীয়ার মো. ইউসুফ আলী মাষ্টারের মেয়ে মোসা. নার্গিস নাহার হেলেনা (৫২) ও বোয়ালিয়া পঞ্চবটি এলাকার খরবোনার বাসিন্দা মৃত খলিলের মেয়ে মোছা. কহিনুর ওরফে রাত্রী (৪৩)।

উপ-পুলিশ কমিশনার বলেন, রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডে ভুক্তভোগীর সঙ্গে পরিচয় হয় নার্গিস নাহার হেলেনার সঙ্গে। ভুক্তভোগী পেশায় একজন শিক্ষক হওয়ায় হেলেনা তাকে অনুরোধ করেন তার নাতিসহ চার-পাঁচজন ছাত্র-ছাত্রীকে ইংরেজি বিষয়ে পড়ানোর জন্য। ২ অক্টোবর পড়ানোর কথা বলে শালবাগানের বাসায় ডাকেন তাকে। বিকেল ৩টার দিকে বাসায় পড়াতে গেলে হেলেনাসহ তার সহযোগীরা ভুক্তভোগীকে আটক করে রাখেন। অভিযুক্ত রাত্রী তাকে অর্ধউলঙ্গ করে ছবি তুলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছেড়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে ৩০ হাজার টাকা টাকা দাবি করেন। উপায় না পেয়ে পরিবারের কাছ থেকে ১৮ হাজার টাকা বিকাশের মাধ্যমে এনে দেন ভুক্তভোগী।

তিনি আরও বলেন, গ্রেফতাররা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সংঘবদ্ধ প্রতারণা চক্রের সদস্য বলে স্বীকার করেছে। দীর্ঘদিন যাবত তারা বিভিন্ন ব্যক্তিকে হেনস্তা ও হুমকির মাধ্যমে অর্থ হাতিয়ে আসছিল দারা। এছাড়া তাদের বিরুদ্ধে প্রতারণা, চাঁদাবাজি, মাদক ও অস্ত্রসহ বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা আছে। নতুন করে চাঁদাবাজির মামলা দিয়ে আজ দুপুরে তাদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :