ভারতীয়দের হৃদয়ে বাংলাদেশের বিশেষ স্থান রয়েছে

0
35

তিন দিনের সফর শেষে নয়াদিল্লির উদ্দেশ্যে ঢাকা ত্যাগ করেছেন ভারতের রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। গত বছর করোনা মহামারি প্রাদুর্ভাবের পর এটাই তার প্রথম বিদেশ সফর। তিনি এই সফরকে সবচেয়ে সঠিক ও গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করছেন।

ভারতের রাষ্ট্রপতি বলেন, একজন ঘনিষ্ঠ প্রতিবেশীর সঙ্গে দেখা করা আনন্দ ও সম্মানের। পাশাপাশি বাংলাদেশের জনগণের উষ্ণতা ও ভালোবাসা আমাকে গভীরভাবে ছুঁয়েছে।

শুক্রবার (১৭ ডিসেম্বর) রাজধানীর রমনা কালী মন্দিরে এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। এরপর দুপুরে ইন্ডিয়ান এয়ারলাইন্সের একটি বিশেষ প্লেনে শাহজালাল বিমানবন্দর ত্যাগ করেন। এসময় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন ভারতের রাষ্ট্রপতিকে বিদায় জানান।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে রামনাথ কোবিন্দ বলেন, আমরা যৌথভাবে বাংলাদেশের স্বাধীনতা এবং আমাদের কূটনৈতিক সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার ৫০তম বার্ষিকী উদযাপন করছি। স্বাধীনতা অর্জনে বাংলাদেশের জনগণের বিপুল ত্যাগের প্রতি আমি শ্রদ্ধা জানাই।

ভারতীয়দের হৃদয়ে বাংলাদেশের বিশেষ স্থান রয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমাদের রয়েছে আত্মীয়তা, ভাষা এবং সংস্কৃতির প্রাচীন বন্ধনের ওপর ভিত্তি করে রচিত এক অনন্য ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক। আমাদের সম্পর্ক দুই দেশের বিচক্ষণ নেতৃত্বের দ্বারা লালিত হচ্ছে।

১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের কথা স্মরণ করে ভারতের রাষ্ট্রপতি বলেন, পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে মুক্তিবাহিনীর সশস্ত্র সংগ্রামের কথাগুলো আমার মনে পড়ছিল। আমি শ্রদ্ধা জানাই সেই সব নারীদের প্রতি, যাদের মর্যাদা লঙ্ঘন করা হয়েছিল, অসহায় বেসামরিক নাগরিকদের হত্যা করা হয়েছিল।

বাংলাদেশের উন্নয়নের প্রশংসা করে রামনাথ কোবিন্দ বলেন, আজ বাংলাদেশ এই অঞ্চলে প্রবৃদ্ধি ও উন্নয়নের মডেলে পরিণত হয়েছে। একই সঙ্গে বিশ্ববাসীর কাছে প্রমাণিত হয়েছে যে, বাংলাদেশের জনগণের লড়াই ন্যায়সঙ্গত ছিল। এই লড়াই ছিল মৌলিক গণতান্ত্রিক অধিকারের জন্য।

মুক্তিযুদ্ধের পর, বিশেষ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ বড় ধরনের আর্থ-সামাজিক পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে গেছে বলে উল্লেখ করেন ভারতের রাষ্ট্রপতি।

বাংলাদেশকে একটি শক্তিশালী অর্থনীতির দিকে এগিয়ে যেতে এবং বৃহত্তর সমৃদ্ধির অগ্রযাত্রায় অংশীদার হতে ভারত প্রতিশ্রুতিবদ্ধ বলে জানান তিনি।

ভারতের রাষ্ট্রপতি বলেন, একটি প্রগতিশীল, অন্তর্ভুক্তিমূলক, গণতান্ত্রিক ও সম্প্রীতিপূর্ণ সমাজে বাংলাদেশের মৌলিক মূল্যবোধ বজায় রাখা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অন্যতম প্রধান অবদান।

তিনি আরও বলেন, ভারত এমন একটি বাংলাদেশকে সমর্থন করবে, যা এদেশের স্বাধীনতা আন্দোলন থেকে আবির্ভূত মূল্যবোধগুলোকে তুলে ধরে। বাংলাদেশের মানুষের সদিচ্ছা এবং বন্ধুত্বকে ভারত মূল্যায়ন করে বলে জানান রামনাথ কোবিন্দ।

গত বুধবার (১৫ ডিসেম্বর) স্ত্রীসহ ঢাকায় আসেন ভারতের রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের আমন্ত্রণে ঢাকা আসেন তিনি। যা তার প্রথমবারের মতো বাংলাদেশ সফর।

মুজিব জন্মশতবর্ষ ও মুক্তিযুদ্ধে বাঙালির বিজয়ের সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে বিশেষ আয়োজনে অংশ নেন তিনি।

আপনার মতামত লিখুন :